পোশাক শিল্পের রপ্তানি প্রবৃদ্ধি অব্যাহত রাখার আশ্বাস

16

নিজস্ব প্রতিবেদক

রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো-এর মহাপরিচালক বেবী রানী কর্মকারের সঙ্গে বিজিএমইএ’র প্রথম সহ-সভাপতি সৈয়দ নজরুল ইসলামের নেতৃত্বে বিভিন্ন স্টেক হোল্ডারদের এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। গতকাল শনিবার বিকাল সাড়ে ৩ টায় চট্টগ্রামের রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি) কার্যালয়ে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।
এসময় বিজিএমইএ’র প্রথম সহ-সভাপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম বলেন, চলমান বিশ্ব অর্থনৈতিক মন্দার প্রভাব পড়েছে আমাদের অর্থনীতি ও শিল্প সেক্টরে। বিভিন্ন প্রতিকূলতার মধ্যেও চলমান ২০২৩-২০২৪ অর্থবছরের লক্ষ্যমাত্রা ৫২.২৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলারসহ ২০৩০ সালের মধ্যে ১০০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের লক্ষ্যে রপ্তানিকারকরা আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।
তিনি আরো বলেন, পোশাক শিল্পের কার্যক্রম ফ্যাশন এবং সময় নির্ভর, রপ্তানির সক্ষমতা বৃদ্ধিতে এই শিল্প বিশ্বের বিভিন্ন দেশে নতুন উচ্চ মূল্যের পণ্য রপ্তানির লক্ষ্যে কার্যক্রম পরিচালনা করছে। এক্ষেত্রে বিশ্বের নতুন নতুন মার্কেট সম্পর্কে হালনাগাদ তথ্যাদি সরবরাহ করা এবং রপ্তানিবান্ধব নীতিমালা প্রণয়নে সহযোগিতা একান্ত প্রয়োজন। এছাড়াও চট্টগ্রামকে ব্যবসায়িক হাব হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে সরকার কর্তৃক বিভিন্ন মেগা প্রজেক্ট বাস্তবায়ন করছে। ফলশ্রæতিতে ইপিবি সংশ্লিস্ট কার্যক্রম যথাক্রমে- নিবন্ধন ও নবায়নসহ জঊঢ এর আওতায় নিবন্ধন ও সংশোধন, এঝচ, সাফ্টা সার্টিফিকেট ইস্যু ইত্যাদি কার্যক্রম সহজীকরণ ও দ্রæত সম্পাদনে রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো চট্টগ্রাম কার্যালয়কে ক্ষমতায়ন করা জরুরি। তিনি দক্ষ জনশক্তি গড়ে তোলার লক্ষ্যে পোশাক শিল্পের মিড লেবেল কর্মকর্তাদেরকে প্রশিক্ষণ প্রদানের উপরও গুরুত্বারোপ করেন।
বৈঠকে ইপিবি’র মহাপরিচালক বেবী রানী কর্মকার জাতীয় আর্থ-সমাজিক উন্নয়নসহ কর্মসংস্থানে পোশাক শিল্পের ভ‚মিকার প্রশংসা করে বর্তমান সংকটকালীন পরিস্থিতি বিবেচনায় ইপিবি সংশ্লিষ্ট পোশাক শিল্পের কার্যক্রম সহজীকরণ পূর্বক দ্রæততার সাথে সম্পাদনে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের ব্যাপারে আশ্বাস প্রদান করেন। এছাড়াও তিনি দক্ষ মানব সম্পদ উন্নয়নে চট্টগ্রামে ইপিবি’র বিভিন্ন প্রশিক্ষণ কর্মসূচীতে পোশাক শিল্পের মালিক ও কর্মকর্তাদের অংশগ্রহণের আহŸান জানান। রপ্তানি প্রবৃদ্ধি অব্যাহত রাখার স্বার্থে রপ্তানিবান্ধব নীতিমালা প্রণয়নে ইপিবি বিজিএমইএ সহ সংশ্লিষ্ট সকল ষ্টেক হোল্ডারদের সাথে সমন্বিত কার্যক্রম পরিচালনা করবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।
একইভাবে বিশ্বের নতুন নতুন মার্কেটে রপ্তানি বৃদ্ধি সহ আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম সহজীকরণে রপ্তানিবান্ধব নীতিমালা প্রণয়নের উপর আরো বক্তব্য রাখেন ইপিবি’র পরিচালক টেক্সটাইল মাহমুদুল হাসান, ইপিবি চট্টগ্রাম কার্যালয়ের পরিচালক শারমিন আক্তার, বিজিএমইএ’র পরিচালক এ.এম. শফিউল করিম (খোকন), বিকেএমইএ’র পরিচালক মো. শামসুল আজম প্রমুখ। এছাড়া বৈঠকে বিজিএমইএ’র সদস্য রাকিব আল নাছের, বিকেএমইএ’র পরিচালক শাহাজাদা ফৌজুল ইমরান খানসহ বিজিএমইএ ও বিকেএমইএ এবং ইপিবি’র উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।