পেকুয়ায় উপজেলায় ত্রাণ বিতরণ

7

পেকুয়া প্রতিনিধি

কক্সবাজারের পেকুয়ায় উপজেলা প্রশাসনসহ বিভিন্ন সংগঠনের উদ্যোগে পানিবন্ধি মানুষের মাঝে শুকনো খাবার বিতরণ করা হয়েছে। সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে পানিবন্ধি মানুষের মাঝে শুকনো খাবার বিতরণ করেছে উপজেলা প্রশাসন। গত কয়েকদিনের ভারী বর্ষণে পানির নিচে তলিয়ে যাওয়া এলাকা পরিদর্শনে যান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মোতাছেম বিল্লাহ। এদিন তিনি উপজেলার তিনটি ইউনিয়নের পানিবন্ধি মানুষের মাঝে এসব শুকনো খাবার বিতরণ করেছন। ত্রাণ ও দুর্যোগ মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে উপজেলা প্রশাসন ২১০০শ পরিবারের মাঝে ত্রাণসামগ্রী তুলে দেন। পেকুয়া সদর ৩০০ পরিবার শিলখালী ইউনিয়ন ১১০০ ও বারবাকিয়ায় ৬০০ পরিবারের মাঝে এসব ত্রাণ বিতরণ করা হয়। বৃষ্টি উপেক্ষা করে ত্রাণ বিতরণের সময় উপস্থিত ছিলেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) আসিফ আল জিনাত, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. আমিনুল ইসলাম, শিলখালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলহাজ নুরুল হোসেনসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধি। এদিকে প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে শেখ হাসিনার পক্ষে পেকুয়া সদর ইউনিয়নের ত্রাণ বিতরণ করেছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম। তিনি সম্প্রতি সকালে পূর্ব গোঁয়াখালী, চিরাদিয়া, বিলহাচুরাসহ বেশ কয়েকটি গ্রামের পানিবন্ধি মানুষের মাঝে এসব ত্রাণ বিতরণ করেছে। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল শামা শামীম, সদর ইউনিয়নের সভাপতি এম আজম খান ও উপজেলা শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক এসএম শাহাদাত হোসেনসহ আরও অনেকে। এছাড়া উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা ওসমান ছরওয়ার বাপ্পির নিজস্ব অর্থায়নে পেকুয়া সদর ইউনিয়নের পানিবন্ধি কয়েকশত পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেছে। শুকনো খাবারের প্রতিটি প্যাকেটে চনাচুর, চিড়া, বিস্কিট, মুড়ি ও চিনি রয়েছে। বিকেল ৩টা থেকে রাত ১০পর্যন্ত গরীব, দুস্থ ও অসহায় পরিবারের এসব শুকনো খাবারের প্যাকেট তুলে দেন। এসময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন একদিকে জলাবদ্ধতা অন্যদিকে মহামারি করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে কঠোর লকডাউন। এমতাবস্থায় কর্মহীন ও নিম্ন আয়ের মানষের অর্থ সংকট দেখা দিয়েছে। দুর্যোগকালীন এ সময়ে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে সকলের প্রতি অনুরোধ জানান। অপরদিকে পেকুয়া এসডি সিটি সেন্টারের সত্তা অধিকারী সরোয়ার উদ্দিনের পক্ষে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করেছে সদর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য সাজ্জাদ হোসেন।