পুষ্টির চাহিদা পূরণ করতে বেশি করে মাছ চাষ করতে হবে

3

দীঘিনালা প্রতিনিধি

খাগড়াছড়ি দীঘিনালায় কাপ্তাই লেকে মাছ ধরা নিষিদ্ধকালীন সময়ে মৎস্য আইন প্রতিপালন বিষয়ে শোভাযাত্রাসহ মৎস্যচাষী, মৎস্যজীবিদের বার্ষিক কর্ম সম্পাদন কার্যক্রমের অংশ হিসেবে মৎস্য চাষী ও মৎস্যজীবিদের উদ্বুদ্ধকরণে র‌্যালি এবং আলোচলা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত ১৩ সেপ্টম্বর সকাল ১০টায় উপজেলার মেরুং ইউনিয়ন পরিষদ কার্যলয়ে সমান থেকে দীঘিনালা মৎস্য অধিদপ্তরের আয়োজনে মৎস্যচাষী ও মৎস্যজীবিদের অংশ গ্রহনে র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি মেরুং ইউনিয়নের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন শেষ ইউনিয়নের সামনে এসে শেষ হয়। পরে মেরুং ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. রহমান করিব রতনের সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি ছিলেন দীঘিনালা উপজেলা পরিষদ নারী ভাইস চেয়ারম্যান সীমা দেওয়ান, উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা অর্বনা চাকমা প্রমুখ। স্বাগত বক্তব্যে মৎস্য কর্মকর্তা অর্বনা চাকমা বলেন, পরিবেশ রক্ষায় বেশি করে গাছ লাগাতে হবে। আর মানুষের পুষ্টির চাহিদা পূরণ করতে বেশি করে মাছ চাষ করতে হবে এবং বছরে তিন মাছ নদীতে ও সাগরে মাছ ধরা বন্ধ রাখতে হবে। মে-জুলাই মাস মাছ ডিম দেয়। মাছ বড় হওয়া জন্য সুযোগ দিতে হবে। এ তিন মাস সরকার পক্ষ থেকে স্মার্ট কার্ডধারীদের সহয়তা প্রদান করা হয়। প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপজেলা নারী ভাইস চেয়ারম্যান বলেন, কাপ্তাই লেগের মাছ ধরে বিক্রি করে অনেকে জীবিকা নিবাহ করে। ছোট মাছ ও ডিমওয়ালা মাছ ধরে কেন এ সম্পদ নষ্ট করব। আমার সচেতন হলে আমাদের সম্পদ আমরাই রক্ষা করতে পারি। মানুষের আমিষের চাহিদা ৮০% মাছ থেকে পূরণ হয়।