পুলিশ থেকে ছিনিয়ে নেওয়া মাদক ব্যবসায়ীসহ গ্রেপ্তার ৫

11

নিজস্ব প্রতিবেদক

নগরীর কালুরঘাট পুলিশ ফাঁড়িতে হামলা চালিয়ে ছিনিয়ে নেওয়া সেই মাদক ব্যবসায়ীসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে মহানগর গোয়েন্দা (পশ্চিম) পুলিশ। গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে সীতাকুন্ডের ভাটিয়ারি এলাকায় ঢাকাগামী একটি বাস থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। গতকাল বুধবার পূর্বদেশকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন চান্দগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মঈনুর রহমান চৌধুরী। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- পটুয়াখালী জেলার মির্জাগঞ্জ থানার আন্দরকলা এলাকার লোকমান সওদাগরের ছেলে মো. হানিফ খান (২৬) ও ট্রান্সজেন্ডার (হিজড়া) মো. ইয়াছিন (২৪), চান্দগাঁও থানার মধ্যম মোহরার মৃত রফিকের ছেলে মহিউদ্দিন শরীফ (২৩), পটুয়াখালী জেলার মির্জাগঞ্জ থানার আন্দুয়া এলাকার মোশাররফ শিকদারের ছেলে রেজাউল করিম (২২) ও নোয়াখালী জেলার সুধারাম থানার ভটিরটেক এলাকার মৃত জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে হৃদয় (৫১)।
জানা গেছে, গত শনিবার (১৯ নভেম্বর) সন্ধ্যায় নগরীর কালুরঘাট ব্রিজের সামনে থেকে ইয়াবাসহ হানিফ ও মহিউদ্দিন শরীফকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরে পুলিশ ফাঁড়িতে হামলা চালিয়ে দু’জনকে ছিনিয়ে নিয়ে যায় গ্রেপ্তারকৃতরা। এ সময় উভয়পক্ষের সংঘর্ষে আহত হন হানিফের বোন নাজমা আক্তার। রাতেই হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। আহত হন পুলিশের দুই সদস্য। তারা পুলিশ ফাঁড়িতে ভাঙচুর করে পুলিশের ব্যবহৃত সরকারি মোবাইল ফোন ও ওয়াকিটকি ছিনিয়ে নিয়ে যায়। পরে মৌলভীবাজার এলাকায় রেললাইনের পাশ থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় ওয়্যারলেস সেটটি উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় চান্দগাঁও থানায় কালুরঘাট পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক (এসআই) শরীফ রোকনুজ্জামান বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেন। মামলায় ২২৪ জনকে আসামি করা হয়।
এ বিষয়ে চান্দগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মঈনুর রহমান চৌধুরী বলেন, গত শনিবার রাতে গ্রেপ্তারের পর পুলিশের ওপর হামলা চালিয়ে হানিফকে ছিনিয়ে নিয়ে যায় তার সহযোগী ও ট্রান্সজেন্ডাররা। তাদের ধরতে পুলিশ বিভিন্নভাবে তৎপরতা চালায়। পরে মঙ্গলবার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সীতাকুÐে ঢাকাগামী একটি বাস থেকে হানিফ ও তার ভাই ইয়াসিনকে গ্রেপ্তার করে ডিবি পুলিশ।