পুলিশের মামলায় একদিনের রিমান্ডে বিএনপির ৮ কর্মী

3

নিজস্ব প্রতিবেদক

নগরীর জামালখান প্রেসক্লাবের সামনে বিএনপির মানববন্ধন কর্মসূচিতে পুলিশের সঙ্গে পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় আট কর্মীর রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। গতকাল বৃহস্পতিবার অতিরিক্ত মূখ্য মহানগর হাকিম আবদুল হালিম রিমান্ড আবেদনের ওপর শুনানি শেষে এই আদেশ দেন।
জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ড মঞ্জুর হওয়া বিএনপির কর্মীরা হলেন- কামাল উদ্দিন, শহিদুল ইসলাম, রাহিন চৌধুরী, মো. মাসুদ, মো. আরিফ, নুরুল হুদা, মো. সোহেল ও শওকত আকবর। শারীরিকভাবে অসুস্থ থাকায় অপর দুই আসামি জাহাঙ্গীর আলম ও রেজাউল করিমের রিমান্ড আবেদন নামঞ্জুর করেন আদালত।
নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার (এডিসি-প্রসিকিউশন) কামরুল হাসান জানান, মামলার ১০ আসামিকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে পুলিশ পাঁচ দিন করে রিমান্ডের আবেদন করে। শুনানি শেষে আদালত ৮ আসামির একদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।
এর আগে গত ৫ জানুয়ারি ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ পালন উপলক্ষে নগর বিএনপির নেতা-কর্মীরা বিকালে প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধনের জন্য জড়ো হন। এ সময় সেখানে উপস্থিত পুলিশ ও দলটির নেতা-কর্মীদের মধ্যে পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এতে চার পুলিশ সদস্য আহত হন। বিএনপির দাবি, তাদের ৩৫ নেতা-কর্মী আহত হয়েছেন। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ৪৯ কর্মীকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।
এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে কোতোয়ালি থানায় নগর বিএনপির আহব্বায়ক শাহাদাত হোসেন, সদস্যসচিব আবুল হাশেম, দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহব্বায়ক আবু সুফিয়ান, নগর বিএনপির যুগ্ম আহব্বায়ক ইয়াছিন চৌধুরী, এম এ আজিজ, নাজিবুর রহমান, সাইফুল আলম, কাজী বেলাল, নগর যুবদলের সভাপতি মোশাররফ হোসেন, নগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি এইচ এম রাশেদ খান ও নগর ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি গাজী সিরাজ উল্লাহসহ ৭৫ জনের নাম উল্লেখ করে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করে।