পুরোটাই ফ্রি, তবুও নিচ্ছে না কেউ!

57

মশার যন্ত্রণায় অতিষ্ঠ হয়ে সেদিন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একজন স্ট্যাটাস দিয়েছেন তার বাড়ির মোটা তাজা মশাগুলো ৮০ শতাংশ ছাড়ে বিক্রি হবে। সেখানে তার বন্ধুরা নিজেদের বাড়ির একই অবস্থা জানিয়ে অনেকেই বলেন, তেলাপোকা, ছারপোকা, মশার জন্য তাদের জীবনও অতিষ্ঠ। একজন তো বলেই দিলেন, মানুষের ঘর তো নয়, যেন পোকামাকড়ের ঘর বসতি। করোনা থেকে নিরাপদে থাকতে ঘর পরিষ্কার ও জীবাণুমুক্ত রাখতে মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে ঘরের এই ছোট ছোট পোকামাকড়গুলো। এগুলো দূর করতে যা করতে পারেন :
শসা কাটার সময়ে দুপাশের অংশ আমরা ফেলেই দেই। এগুলো না ফেলে সংরক্ষণ করুন। এগুলোকে রেখে দিন বিভিন্ন কোনায়, কাপবোর্ডের ভেতরে, আলমারির ভেতরে। এগুলোতে থাকা প্রাকৃতিক উপাদান তেলাপোকা পছন্দ করে না ফলে তারা এসব জায়গায় আসবে না।
ভিনেগার দিয়েও দূর করতে পারেন পোকামাকড়। এক অংশ ভিনেগার এবং দুই অংশ পানি মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণটি ঘরের আনাচে কানাচে ছিটিয়ে দিন। ঘর মোছার পানিতেও মিশিয়ে নিন,দেখবেন পোকার বংশ শেষ হয়ে গেছে। তেলাপোকা থেকে রেহাই পেতে গোলমরিচ গুঁড়া, পেঁয়াজ, রসুন এবং পানি দিয়ে পেষ্ট তৈরি করে নিন। পেষ্ট কিছুটা তরল করে তৈরি করবেন। এবার এটি স্প্রের বোতলে ভরে রাখুন। যেখানে তেলাপোকা দেখবেন সেখানে স্প্রে করুন। পোকা পিপারমেন্ট অয়েলের গন্ধ সহ্য করতে পারে না। কিছু পরিমাণ পানির সাথে আট ফোঁটা পিপারমেন্ট অয়েল মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণটি স্প্রের বোতলে ভরে রাখুন। ঘরের প্রতিটি কোনায় এটি স্প্রে করুন। ভিনেগার এবং পিপারমেন্ট এসেনশিয়াল অয়েল একসাথে মিশিয়েও ব্যবহার করতে পারেন।
পিঁপড়া তাড়াতে হলুদের গুঁড়া অথবা লবণের একটা লাইন তৈরি করুন তাদের চলাচলের রাস্তার ওপরে। এটা ম্যাজিকের মতো কাজ করবে। কিছুক্ষণ পরই দেখবেন ঘরের সব পিঁপড়া পালিয়েছে। পোকা দূর করতে পিপারমেন্ট অয়েল, সিলিকা জেল ও বেকিং সোডাও বেশ কার্যকর। নিয়মিত ঘরবাড়ি পরিষ্কার রাখুন। মাঝে মাঝে প্লাস্টিকের ব্যাগ, তোয়ালে, বিছানাপত্র, কসমেটিক্স, বাক্স- নেড়েচেড়ে অন্য জায়গায় রাখুন।