পিছিয়েপড়া জনগোষ্ঠীর অধিকার নিশ্চিত করতে হবে

11

 

বিদ্যমান উন্নয়ন ব্যবস্থায় অসম বন্টন ও সুষম অংশীদারত্বের অভাবে পিছিয়ে পড়া জনপদের মানুষরা আরো পিছিয়ে থাকছে। চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের বঙ্গবন্ধু হলে ওব্যাট হেল্পার্স’র উদ্যোগে ‘উন্নয়নে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর অন্তর্ভূক্তিকরণ’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন’র প্রাক্তন মেয়র, সাবেক সাংসদ ও ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস ফোরাম অব বাংলাদেশ’র প্রতিষ্ঠাতা মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী। ওব্যাট’র প্রতিষ্ঠাতা আনোয়ার আকমল খানের সভাপতিত্বে সম্পন্ন হয় ও এসডিজি ইয়ুথ ফোরামের সভাপতি নোমান উল্লাহ বাহারের সঞ্চালনায় সেমিনারে মূখ্য আলোচক ছিলেন ইউএসটিসির প্রাক্তন উপাচার্য ও জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ প্রফেসর ডা. প্রভাত চন্দ্র বড়ুয়া।
বিশেষ অতিথি ছিলেন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের উপপরিচালক ড. গাজী গোলাম মাওলা (আজাদ বুলবুল), সরকারি শিক্ষক প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের শিক্ষক শামসুদ্দিন শিশির, ড. মুহাম্মদ কামাল উদ্দিন, চট্টগ্রাম কলেজের অধ্যাপক মুজিব রাহমান, নাছির উদ্দিন, মোশাররফ হোসেন, সাজ্জাদ উদ্দিন, নেছার আহমেদ খান, লায়ন ডা. নারায়ন চন্দ্র নাথ, এম এ জলিল প্রমুখ। মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী আরো বলেন, সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি উন্নয়ন অংশীজনদের যারা পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর উন্নয়নে নিয়মিত কাজ করছে তাদের সাথে সমন্বয় সাধনের মাধ্যমে টেকসই উন্নয়ন অভিষ্ঠ পূরণ সম্ভব ও সহজতর হবে।
আনোয়ার আকমল খান বলেন, সমাজের সঠিক মূল্যায়নে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীকে বিবেচনায় না নেওয়ার মানসিকতা পরিহার করতে হবে সর্বাগ্রে। বিভিন্ন প্রশিক্ষণের মাধ্যমে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর দক্ষতা বৃদ্ধি ও আয়বর্ধনমূলক কর্মকান্ডে সম্পৃক্ত করে বেকারত্ব দূর করা, শোভন কর্মসংস্থান নিশ্চিত করা জরুরি। প্রফেসর ডা. প্রভাত চন্দ্র বড়ুয়া বলেন, অর্থনেতিক বৈষম্য বাংলাদেশের সামগ্রিক উন্নয়নের গতিকে শক্ত করছে। উন্নয়নের সুফল সকল পর্যায়ে পৌছাতে দরকার সুশাসন প্রতিষ্ঠা বিশেষত অর্থনৈতিক সাম্যতা আনয়ন।