পারফরমেন্সে খুশি নান্নু তামিমদের চমৎকার ব্যাটিং অনুশীলন

7

ক্রীড়া ডেস্ক

তামিম ইকবালের ব্যাটে ওয়ানডের আগ্রাসন। সাইফ হাসান, নাজমুল হোসেন শান্ত ও মুশফিকুর রহিমের ব্যাটে ফিফটি। রান পেলেন নুরুল হাসান সোহানও। ৮০ ওভার হওয়ার আগেই দলের রান তাই পেরিয়ে গেল তিনশ। সারা দিনে বোলাররা নিতে পারলেন কেবল ১ উইকেট।
শ্রীলঙ্কায় নিজেদের মধ্যে দুই দিনের প্রস্তুতি ম্যাচের প্রথম দিনে খারাপ হলো না ব্যাটসম্যানদের অনুশীলন। কাতুনায়েকের সিএমসিসি গ্রাউন্ডে গতকাল শনিবার ৭৯.২ ওভার খেলে বাংলাদেশ লাল দলের রান ৬ উইকেটে ৩১৪। এই উইকেট সংখ্যায় একটি বড় ফাঁকি, ছয় ব্যাটসম্যানের পাঁচ জনই আউট স্বেচ্ছায় ব্যাটিং ছেড়ে দেওয়ায়। বাংলাদেশ সবুজ দলের একমাত্র উইকেট শিকারি বোলার শুভাগত হোম, শেষ বিকেলে এই অফ স্পিনার ফেরান তাইজুল ইসলামকে। অবশ্য মূল টেস্ট বোলারদের কেউ সবুজ দলে নেই। শুভাগতর সঙ্গে এই দলের বোলিং আক্রমণে আছেন ইবাদত হোসেন চৌধুরী, শরিফুল ইসলাম, মুকিদুল ইসলাম, শহিদুল ইসলাম ও নাঈম হাসান। লাল দলের অধিনায়ক তামিম ইকবালের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে লাঞ্চের আগেই রান হয়ে যায় ১০০। ৯ চার ও ২ ছক্কায় ৫৩ বলে ৬৩ করে লাঞ্চের পর আর ব্যাটিংয়ে নামেননি তামিম। আরেক ওপেনার সাইফ হাসান ও তিনে নামা নাজমুল হোসেন শান্ত ঠাÐা মাথার ব্যাটিংয়ে সেরে নেন অনুশীলন। ৬ চার ও ১ ছক্কায় ৯৪ বলে ৫২ করে ব্যাটিং ছাড়েন সাইফ। শান্ত ব্যাটিং ছেড়ে দেন ১১১ বলে ৫৩ রান করে। ব্যাটিং অনুশীলন খারাপ হয়নি মুশফিকুর রহিম ও মেহেদী হাসান মিরাজের।
মুশফিকুর রহিমের ব্যাটেও ছিল অনেকটা ওয়ানডের গতি। ৯ চার ও ১ ছক্কায় ৮২ বলে ৬৬ রান করে স্বেচ্ছাবসরে যান তিনি। সোহান ফিফটির অপেক্ষাও করেননি, ৪৮ রান করে ব্যাটিং ছাড়েন এই কিপার-ব্যাটার। মেহেদী হাসান মিরাজ অপরাজিত থাকেন ২৪ রান করে। সবুজ দলের নতুন বলের দুই পেসার ইবাদত ও শরিফুল উইকেট না পেলেও কিছুটা নিয়ন্ত্রিত বল করেন। তবে শহিদুল-মুকিদুল-শুভাগতরা ছিলেন একটু খরুচে। শুভাগতর ১ উইকেট আসে ১১.২ ওভারে ৪৬ রান দিয়ে। দলের সঙ্গে থাকা প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু বিসিবির ভিডিও বার্তায় সন্তুষ্টি জানালেন ব্যাটসম্যানদের অনুশীলনে। তুলে ধরলেন বোলারদের কঠিন বাস্তবতাও।