পটিয়ায় ইফতার মাহফিলে মারামারি

11

পটিয়ায় এক ইফতার মাহফিলে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় ভাটিখাইন ইউনিয়নস্থ ভাটিখাইন ব্রিজ এলাকায় এ ঘটনায় ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক মোহা¥মদ ইব্রাহিম আহত হয়েছেন। এক পর্যায়ে ইফতার মাহফিলের মঞ্চ থেকে ব্যানার টেনে ছিঁড়ে ফেলা হয়। এ সময় চেয়ার ছোড়াছুড়ি শুরু হলে এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। জানা গেছে, গতকাল ভাটিখাইনে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগের ব্যানারে ইফতার মাহফিল আয়োজন করা হয়। এ আয়োজনের উদ্যোক্তা ছিলেন কেন্দ্রীয় যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বদিউল আলম বদি। বিকেলে ভাটিখাইন ইউনিয়নের ব্রিজ এলাকায় আয়োজিত ইফতার ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথি ছিলেন পটিয়া উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার ও পৌরসভা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শামসুদ্দিন আহমদ, বিশেষ অতিথি ছিলেন যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বদিউল আলম বদি, কেন্দ্রীয় দেশরত্ম পরিষদের সভাপতি মোহাম্মদ শাহাবুদ্দিন, দেশরত্ম পরিষদ দক্ষিণ জেলা সভাপতি মোহাম্মদ শাহজাহান চৌধুরী, সাইফুল ইসলাম, জসিম উদ্দিন, জমির উদ্দিন প্রমুখ। মাহফিলে শেষ পর্যায়ে এ মারামারির ঘটনা ঘটে।
ভাটিখাইন ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক ও স্থানীয় রাজনীতিতে হুইপ সমর্থিত মোহাম্মদ ইব্রাহিম জানান, বর্তমান ইউনিয়ন আ’লীগের কমিটিতে তিনি দায়িত্বে রয়েছেন। কিন্তু সাবেক সাধারণ সম্পাদক জসিমসহ কয়েকজন এলাকায় ইফতার ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করেন। অনুষ্ঠানে আয়োজকরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ব্যানার ব্যবহার করেন। অথচ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কেউ তাতে সম্পৃক্ত নয়। এছাড়া মাহফিলে স্থানীয় এমপি ও জাতীয় সংসদের হুইপ সামশুল হক চৌধুরীকে গালিগালাজ করা হয়। তাতে প্রতিবাদ করায় তার উপর হামলা হয়েছে। ওই ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।
এ বিষয়ে কথা বলতে বদিউল আলম বদির মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন দেয়া হয়। কিন্তু তার মুঠোফোন বন্ধ পাওয়ায় বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।
পটিয়া থানার ওসি রেজাউল করিম মজুমদার বলেন, ভাটিখাইন ইউনিয়নে মারামারির ঘটনায় গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত লিখিত কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।