পটিয়ায় ইউনিয়ন পরিষদে তালা

23

পটিয়া প্রতিনিধি

মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে পটিয়ায় ইউনিয়ন পরিষদে তালা দিয়েছেন অন্য ইউপি সদস্যরা। তালা দেয়ার পর তারা সংবাদ সম্মেলন করে মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত না মানার ঘোষণা দেন। মনোনীত প্যানেলের বিরুদ্ধে গতকাল মঙ্গলবার পরিষদের সদস্য ও সদস্যারা বিক্ষোভ করে সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবি জানান। এ কারণে পরিষদে যেতে পারেননি মন্ত্রণালয় মনোনীত প্যানেল চেয়ারম্যানরা। হাইদগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের প্যানেল মনোনয়ন নিয়ে উত্তেজনা বিরাজ করছে ইউপি এলাকায়। জানা গেছে, গতকাল মঙ্গলবার সকালে পরিষদের চেয়ারম্যান, সচিব, কম্পিউটার রুমসহ বিভিন্ন রুমে তালা ঝুলিয়ে দেয় পরিষদের সদস্যরা। ফলে এলাকার লোকজন সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন চরমভাবে। এর আগে গত সোমবার বিকেলে ইউপি সদস্য আবদুর রাজ্জাক চৌধুরী, তছলিমা নুর ও মো. নাসির উদ্দিনকে চেয়ারম্যানের প্যানেলের দায়িত্ব দিয়ে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় একটি প্রজ্ঞাপন জারী করেন।
জানা গেছে, উপজেলার হাইদগাঁও ইউনিয়নে গত ২৯ এপ্রিল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ব্যানারে ইফতার মাহ্ফিলে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি জিতেন কান্তি গুহকে গাছে বেঁধে মারধর করা হয়। এ ঘটনায় হাইদগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান বি এম জসিমকে প্রধান আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন আওয়ামী লীগ নেতা জিতেন কান্তি গুহের ভাই তাপস কান্তি গুহ। এঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান বি এম জসিম ও তার ছেলেসহ কয়েকজন বর্তমানে কারাগারে আছেন। ইতোমধ্যে মামলাটির চার্জশীটও দিয়েছে পুলিশ।
ঘটনার প্রায় দুই মাস পর স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় থেকে তিনজনকে প্যানেল চেয়ারম্যানের দায়িত্ব দেওয়া হয়। অথচ এর আগে পরিষদের ৯ জন ইউপি সদস্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট লিখিত করে। তারপরও একই এলাকার তিনজনকে প্যানেল চেয়ারম্যানের জন্য একটি প্রজ্ঞাপন জারী হওয়ার পর এ উত্তেজনা চলছে।
গতকাল মঙ্গলবার বেলা ১১ টার সময় পরিষদের হল রুমে এক সংবাদ সম্মেলনে পরিষদের ৬নং ওয়ার্ডের সদস্য আবদুল মান্নান গণি ক্ষোভ প্রকাশ করে জানান, হাইদগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের বিভিন্ন প্রকল্পের অর্থ আত্মসাত করতে মতামত ছাড়াই তিনজনের একটি প্যানেল চেয়ারম্যান করা হয়েছে। তারা তিনজনই একই ব্লকের। এরমধ্যে আবদুর রাজ্জাক (৭নং ওয়ার্ড), তছলিমা নুর (৭, ৮, ৯) ও মো. নাসির (৮নং ওয়ার্ড)। দ্রুত ঘোষিত প্যানেল বাতিল করার দাবি জানান। নতুন করে আদেশ জারি করা না হলে পরিষদের তালা খোলা হবে না। আমাদের সর্বাত্মক আন্দোলন প্রতিবাদ চালিয়ে যাওয়া হবে।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন ইউপি সদস্য মো. ফৌজুল আবেদীন সজীব, আবুল কাসেম, আবদুল মান্নান গণি, পারভীন আকতার, রাসুলে হাদ্দাম, রেখা দাশ ও মো. হেলাল উদ্দিন।