নেপালকে হারিয়ে শুভ সূচনা বাংলাদেশের

3

প্রতিপক্ষের মাঠে খেলা বলেই হয়তো নেপালকে নিয়ে বাড়তি সমীহ ছিল বাংলাদেশের। কিন্তু মাঠের খেলা যখন গড়াল, তখন প্রীতি-সাথীদের আক্রমণাত্মক ফুটবলে আড়াল হয়ে গেল সবকিছুই। গোলমুখে আলো ছড়ালেন সুরভী আকন্দ প্রীতি। দারুণ জয়ে সাফ অনূর্ধ্ব-১৬ উইমেন’স চ্যাম্পিয়নশিপ শুরু করল বাংলাদেশ।
আনফা কমপ্লেক্সে গতকাল শনিবার রাউন্ড রবিন লিগে নিজেদের প্রথম ম্যাচে নেপালকে ২-০ গোলে হারিয়েছে বাংলাদেশ। দুটি গোলই করেছেন প্রীতি।
শুরু থেকে আক্রমণাত্মক খেলা বাংলাদেশ প্রথম ভালো সুযোগটি পায় পঞ্চম মিনিটে। সাথী মুন্ডার ক্রস থেকে পোস্টের সামনে বল পেয়ে যান ফাঁকায় থাকা আলপি আক্তার, কিন্তু তাড়াহুড়ো করে নেওয়া শটে বল উড়ে যায় ক্রসবারের ওপর দিয়ে।
চার মিনিট পর আলপি আবারও সুযোগ নষ্ট করেন। মাঝমাঠ থেকে সতীর্থের বাড়ানো বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে বক্সের ভেতর থেকে ভলি করেছিলেন; এবারও বল যায় বাইরে। দ্বাদশ মিনিটে আলপির আরেকটি শট গোলরক্ষক আটকালে বাংলাদেশের গোলের অপেক্ষা বাড়ে।
২৪তম মিনিটে বাংলাদেশকে এগিয়ে নেন প্রীতি। একাধিক সুযোগ নষ্ট করা আলপির পাস ধরে বক্সের বাইরে থেকে সাথী খুঁজে নেন প্রীতিকে। বলের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে গোলরক্ষককে ফাঁকি দিয়ে ডান পায়ের শটে বল জালে পাঠান তিনি।
ব্যবধান দ্বিগুণ হওয়া গোলে দায় আছে নেপাল গোলরক্ষক ঝর্ণা দুমরাকোটির। ২৯তম মিনিটে বক্সের ভেতর আলপিকে ফেলে দেন তিনি। রেফারি বাজান পেনাল্টির বাঁশি। সফল স্পট কিকে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ বাংলাদেশকে এনে দেন প্রীতি।
দ্বিতীয়ার্ধেও বলের নিয়ন্ত্রণ রেখে খেলতে থাকে বাংলাদেশ। ৬২তম মিনিটে হ্যাটট্রিক পেতে পারতেন প্রীতি। আরিফা আক্তারের ক্রসে তার ভলি অল্পের জন্য যায় বাইরে। এরপর ব্যবধান বাড়ানোর মরিয়া চেষ্টা করার চেয়ে বল পায়ে রাখার দিকে মনোযোগী হয় মেয়েরা। তাতে পরে আরও গোল না পেলেও জয় দিয়ে শুরুর আনন্দ নিয়েই মাঠ ছাড়ে সাইফুল বারী টিটুর দল।
জয়ের আনন্দ থাকলেও উন্নতির অনেক জায়গা দেখছেন টিটু। দ্বিতীয়ার্ধে আরও দাপুটে ফুটবলের প্রত্যাশা ছিল বাংলাদেশ কোচের। প্রথম ম্যাচের পারফরম্যান্স ঠিক আছে বলব। তবে অনেক উন্নতির দরকার আছে। বিশেষ করে যত সুযোগ তৈরি করেছি, আরও গোল হওয়া দরকার ছিল। দ্বিতীয়ার্ধে আমাদের দাপুটে ফুটবল খেলার আর ম্যাচটা নিয়ন্ত্রণে রাখা উচিৎ ছিল, কিন্তু আমরা পারিনি। মনে হচ্ছিল মেয়েরা দম হারিয়ে ফেলছে। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে উঁচু হওয়ায় উচ্চতা আর দমের বিষয়টা একটা পার্থক্য গড়ে দেয়। বেশি উচ্চতায় অক্সিজেনের মাত্রাটা কমে যায়। মেয়েরা বলছিল প্রথম ১৫-২০ মিনিট পর ওরা দম হারিয়ে ফেলে। নেপাল ভালো খেলেছে। তবে জয়টা খুবই দরকার ছিল, আমরা ফাইনালের পথে অনেকটা এগিয়ে গিয়েছি। সব কৃতিত্ব মেয়েদের’। খবর বিডিনিউজের
আগামি ৫ মার্চ নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে ভারতের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। গত শুক্রবার উদ্বোধনী দিনে ভুটানকে ৭-০ গোলে উড়িয়ে প্রতিযোগিতায় যাত্রা শুরু করেছে ভারত।