নিরপেক্ষ ব্যক্তিদের মন্ত্রীসভা করে ক্ষমতা ছাড়ার আহব্বান অলির

33

চন্দনাইশ প্রতিনিধি

লিবারেল ডেমোক্রেটিভ পার্টির (এলডিপি) প্রেসিডেন্ট ড. কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বীর বিক্রম বলেছেন, মানুষ গত ১২ বছর অনেক নির্যাতিত, নিপীড়িত হয়েছেন। দুনীতি, দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির কারণে দেশে কোন শান্তি নেই। আল্লাহ কখনো ছেড়ে দেন না। সাদ্দাম নিজের জন্য বেহেশত তৈরি করেছিলেন, আল্লাহ তা ধুলিসাৎ করে দিয়েছেন। মোনাজাত করে বর্তমান অবস্থান থেকে মুক্তি চান। সন্ত্রাস, অপরাধ, দুনীতি যেন সমাজ থেকে চলে যায়। এখানে যেন সুশাসন, নিময়-শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠিত হয়, মানুষ যেন সুখে-শান্তিতে বসবাস করতে পারেন।
তিনি বলেন, আজকে শ্রীলংকা ও পাকিস্তানের অবস্থ দেখেন। এখন যে বিপদ আসবে, তা করোনা ভাইরাসের চেয়েও ভয়াবহ, তার থেকে রক্ষা পেতে হলে রাজনীতিবিদদের তওবা করতে হবে। যারা রাষ্ট্র পরিচালনায় অভিজ্ঞ, যারা দেশের মানুষের সমস্যা বুঝতে অভিজ্ঞ, তেমন ব্যক্তিদেরকে ক্ষমতা দিয়ে একটি মন্ত্রিসভা গঠন করে দেশের ক্ষমতা ছাড়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ জানাচ্ছি। অন্যথায় কিভাবে আপনার শেষ হবে, এটা আল্লাহ ছাড়া কেউ বলতে পারবে না।
দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেন, শুধু আমরা নই, আওয়ামী লীগের লোকেদেরও উচ্চ দামে জিনিসপত্র কিনতে হচ্ছে। কিন্তু যখন এ সরকারের পরিবর্তন হবে, তাদের কি অবস্থা হবে, তা চিন্তা করতে হবে। গত ১৪ এপ্রিল বিকালে চন্দনাইশ উপজেলা ও পৌরসভা এলডিপি’র যৌথ উদ্যোগে ইফতার ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। চন্দনাইশ সদরস্থ মহিলা কলেজ মাঠে উপজেলা এলডিপি’র সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান মোতাহের মিয়ার সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন উপজেলা এলডিপি’র সাধারণ সম্পাদক আকতার আলম।
উপস্থিত ছিলেন দক্ষিণ জেলা এলডিপি’র সভাপতি এড. কফিল উদ্দীন চৌধুরী, মহানগর সভাপতি গোলাম কিবরিয়া শিমুল, এলডিপি নেতা আইয়ুব কুতুবী, আইনুল কবির, এড. মাহবুবুল আলম, আকতার উদ্দীন, মহিদ্দীন, লিয়াকত আলী, মনজুর আহসান, জসীম উদ্দীন হায়দার, আবদুল গণি, এনামুল হক, সাহেব মিয়া, আবদুল কাদের, মোসলেম উদ্দীন খাঁন, গণতান্ত্রিক যুবদল নেতা সাইফুল ইসলাম খাঁন, আজহারুল ইসলাম, নজরুল ইসলাম, মো. মহসিন চৌধুরীসহ অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ।