নিখোঁজ চার কিশোরী উদ্ধার

36

পূর্বদেশ অনলাইন
লক্ষ্মীপুরের কমলনগর থেকে নিখোঁজ হওয়া চার কিশোরীকে ৩৪ ঘণ্টা পর উদ্ধার করেছে পুলিশ। রবিবার সন্ধ্যায় লক্ষ্মীপুর জেলা কারাগার সংলগ্ন একটি বাড়ি থেকে তাদের উদ্ধার করা হয়। রাতে লক্ষ্মীপুরের পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক প্রেস ব্রিফিংয়ের মাধ্যমে এ তথ্য জানান, জেলা পুলিশ সুপার ড. এ এইচ এম কামরুজ্জামান। এ সময় সাংবাদিকদের পুলিশ সুপার জানান, শনিবার দুপুরে নিখোঁজ কিশোরীদের ঝুমুর এলাকায় কাঁদতে দেখেন ফারুক নামে এক সিএনজি চালক। একপর্যায়ে ফারুক তার পরিচিত পুলিশের নায়েক নুরুল ইসলামের জেলা কারাগার সংলগ্ন বাসায় ওই কিশোরীদের নিয়ে যান। নুরুল ইসলামের স্ত্রী তার নিকটাত্মীয় রহমানের বাসায় ওই কিশোরীদের রাখেন। পরে কমলনগর এলাকায় নিখোঁজদের পরিবারের সদস্যদের খোঁজ নিতে থাকেন। নায়েক নুরুল বিষয়টি কমলনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) অবহিত করলে সে অনুযায়ী তাদের উদ্ধার করা হয়। সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি আরও জানান, কিশোরীরা তাদের পরিবারের ঠিকানা দিতে রাজি হয়নি। অভাব-অনটন ও কাজের সন্ধানে বাড়ি থেকে বের হয় চার কিশোরী। তারা কাজ করে পরিবারের আর্থিক অভাব দূর করতে বাবা-মার অগোচরে বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়। তারা বাসাবাড়িতে কাজ করে পরিবারকে সাহায্য করতে চেয়েছিল। কারো প্ররোচনায় তারা বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়নি। প্রেসব্রিফিং শেষে কিশোরীদের তাদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। এ সময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) পলাশ কান্তি নাথ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মিমতানুর রহমান, ডিএসবির ওসি একেএম আজিজুর রহমান মিয়া ও কমলনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ সোলায়মান হোসেনসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। শনিবার সকাল ৮টার দিকে কমলনগর উপজেলার চরকাদিরা ইউনিয়নের চরবসু এলাকার বাড়ি থেকে চার কিশোরী বের হয়। নিখোঁজদের একজন নানার বাড়িতে বেড়াতে যাওয়ার কথা বলে বের হয়। কিন্তু এরপর নিখোঁজ হন চার কিশোরী। পরে আত্মীয়-স্বজনসহ বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করে তাদের সন্ধান না পেয়ে রাতেই থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন এক কিশোরীর নানি।
নিখোঁজ কিশোরীদের বয়স ১২ থেকে ১৪ বছরের মধ্যে। তারা সম্পর্কে খালাতো বোন ও প্রতিবেশী। তারা স্থানীয় মাদ্রাসা ও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রী।