নাইক্ষ্যংছড়ি’র ঘুমধুম বিট পুলিশিং এর আলোচনা সভা

বান্দরবান প্রতিনিধি

4

বিট পুলিশিং বাড়ি-বাড়ি,নিরাপদ সমাজ গড়ি”এ ঈশ্লাগানে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়নে কার্যক্রম শুরু করেছে। এ উপলক্ষ্যে ঘুমধুম ইউনিয়ন পরিষদ কমপেক্সে বিট পুলিশিং কার্যালয়ও উদ্ধোধন করা হয়। শুক্রবার বিকাল ইউনিয়ন পরিষদ হলকক্ষে এক আলোচনা ঘুমধুম পুলিশ তদৗল্প কেন্দ্রের ইনচার্জ (ওসি তদন্ত) মো. দেলোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন নাইক্ষ্যংছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আলমগীর হোসেন।এসময় অন্যান্যের মধ্যে সংসদ সদস্য প্রতিনিধি সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ খাইরুল বশর, উপজেলা মুক্তিযুদ্ধা কমান্ডার আলহাজ রাজা মিয়া, এসআই মোখলেসুর রহমান,এসআই মো. ইউনুসসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধিগন।এদিকে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে ওসি আলমগীর হোসেন বলেছেন,সামাজিক নিরাপত্তা দানে পুলিশ-জনগণ পাশাপাশি আসল।
পুলিশের কাছে গিয়ে আইনী সেবা পেতে যেতে হবে না।পুলিশই আপনাদের বাড়িতে গিয়ে আইনী সেবা দেবে।ব্যক্তি,পরিবার ও সামাজিক নিরাপত্তাদানে সদা সজাগ থাকবে পুলিশ। বাড়ি টু বাড়ি গিয়ে নিরাপত্তার বিষয়ে খোঁজ খবর নেওয়া হবে। বাড়ির কোন ছেলে পিতা-মাতা অবাধ্য হয়ে মাদকে জড়াচ্ছে কিনা। জনবিরোধী,সমাজ বিরোধী কিংবা রাষ্ট্র বিরোধী কোন কাজে জড়াচ্ছে কিনা? রেখে যাওয়া ছেলেদের কারণে পরিবার তথা সমাজে কোন ধরণের বিশৃঙ্খলা বা অনাচার সৃষ্টি হচ্ছে কিনা? এসব থেকে উত্তরণে পরিবারের পিতা-মাতা এবং সামাজিক প্রতিনিধিদের নিয়ে সামাজিক প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। তিনি আরোও বলেন,নারী নির্যাতন, বাল্য বিবাহ প্রতিরোধে সামাজিক দায়িত্ব পালন করতে হবে। স্বামী কর্তৃক স্ত্রী নির্যাতন বেড়ে গেছে। স্ত্রী অতিষ্ঠ হয়ে আতœহত্যা, কিংবা সংসার থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে। অনেক নারী স্বামী কে তালাক দিয়ে মুক্তি চাই।এসুযোগে স্বামীরা আরও কয়েকটি বিয়ে করে বসে।এগুলো খেয়াল রাখতে হবে। মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান বন্ধ হয়নি। ফের শুরু হবে মাদক নির্মুল অভিযান। সামাজিক দায়িত্ববোধ থেকে তথ্য দিয়ে পুলিশ কে সহযোগিতা করবেন। আমরাই প্রতিরোধে ব্যবস্থা নিতে বদ্ধপরিকর।