নন্দীগ্রামে মমতার বিরুদ্ধে প্রার্থী শুভেন্দু!

12

একুশের বিধানসভা ভোটে পশ্চিমবঙ্গের নন্দীগ্রামে কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ‘শেষ পর্যন্ত বাংলার মেয়ে’ মমতার বিরুদ্ধে বিজেপির প্রার্থী হতে চলেছেন নন্দীগ্রামের যুবরাজ, কাঁথির শান্তিকুঞ্জের অধিকারি, পরিবারের মেজো ছেলে বুবাই ওরফে শুভেন্দু অধিকারি। এমনটাই বিজেপি সূত্রের খবর। বিজেপি সূত্রের খবর, প্রাথমিকভাবে বঙ্গ বিজেপির তরফে ১৩০ টি আসনের প্রার্থী তালিকার খসড়া ইতোমধ্যে দিল্লির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বর কাছে পাঠানো হয়েছে। একটি আসনের জন্য ২ বা ৩ জনের নাম পাঠানো হয়েছে। এর থেকে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব সম্ভব্য প্রার্থীকে ঠিক করে দেবেন। এই তালিকা রয়েছে শুভেন্দু অধিকারি নামও। তার নন্দীগ্রামে প্রার্থী হওয়া প্রায় পাকা। আগামী ৪ মার্চ দিল্লিতে বিজেপির কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিটির বৈঠক রয়েছে। এই বৈঠকেই শুভেন্দু অধিকারির নাম নন্দীগ্রামে বিজেপির প্রার্থী হিসেবে চূড়ান্ত হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে।
বিজেপির প্রথম দফার প্রার্থী যে তালিকা ঘোষণা হবে তাতে শুভেন্দুরবাবুর নাম থাকছে এমনটাই সূত্রের খবর। যদি শুভেন্দু অধিকারি যে বিজেপির প্রার্থী হতে চান নন্দীগ্রামে তা তিনি প্রকাশ্যে কখনোই বলেননি। তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম নন্দীগ্রামে ঘোষণা হওয়ার পর থেকেই তৃণমূল নেতারা বার বারই তাকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে বলেছেন, ‘ক্ষমতা থাকলে শুভেন্দু যেন নন্দীগ্রাম থেকে প্রার্থী হন।’ সেই চ্যালেঞ্জকে স্বীকার করে নিয়ে তার প্রার্থী হওয়ার বিষয়টি দলের ওপর ছেড়ে দিয়ে আত্মবিশ্বাসের সুরে বিভিন্ন জনসভায় শুভেন্দু অধিকারি বলেছেন, ‘নন্দীগ্রামে যেই বিজেপির প্রার্থী হন না কেন, তিনি দায়িত্ব নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে পঞ্চাশ হাজার ভোটে হারাবেন।’ কিন্তু সম্প্রতি শুভেন্দুবাবু উত্তর কলকাতায় একটি জনসভায় ফের তৃণমূল নেত্রীকে চ্যালেঞ্জ করে দাবি করেছেন, ‘আমি ওকে হারাব।’ এরপর থেকেই শুভেন্দু অধিকারি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে প্রার্থী হচ্ছেন বলে রাজনৈতিক মহলে আলোচনা তুঙ্গে উঠেছে। লোকসভার ফল অনুসারে তৃণমূল নন্দীগ্রামে এগিয়ে ৬৮ হাজার ৩৯১ ভোটে। অপর দিকে, বামদের ভোট এখানে ক্রমশ তলানিতে গিয়ে ঠেকেছে। ২০১৬ সালে বিধানসভায় সিপিআই প্রার্থী ভোট পান ৫৩ হাজার ৩৯৩ আর ২০১৯ এর লোকসভায় তা আরও কমে গিয়ে দাঁড়ায় মাত্র ৯৩৫ ভোট।