নতুন করে তুরস্কে আসছে ৫০ হাজার সিরীয় : এরদোয়ান

16

সিরিয়ার উত্তর পশ্চিমাঞ্চলের ইদলিব প্রদেশ থেকে ৫০ হাজার মানুষ নতুন করে তুরস্কের দিকে আসছে বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ান। বৃহস্পতিবার মালয়েশিয়ায় মুসলিম দেশগুলোর নেতাদের এক বৈঠকে এসব কথা বলেন তিনি। এসময় সিরিয়ার উত্তরপূর্বাঞ্চলে শরণার্থীদের আশ্রয় দেওয়ার তুর্কি উদ্যোগে সমর্থন না দেওয়ায় মুসলিম নেতাদের সমালোচনা করেন এরদোয়ান।
সিরীয় যুদ্ধের কারণে বর্তমানে প্রায় ৩৭ লাখ শরণার্থী তুরস্কে আশ্রয় নিয়েছে। এছাড়া সিরীয় বিদ্রোহীদের সর্বশেষ ঘাঁটি ইদলিব প্রদেশে স¤প্রতি বিমান হামলা জোরালো করেছে রাশিয়া ও আসাদ বাহিনী। ওই প্রদেশে প্রায় ৩০ লাখ মানুষের বসতি রয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। হামলার মুখে এসব বাসিন্দাদের অনেকেই তুরস্কে চলে যাওয়ার চেষ্টা করছে। বৃহস্পতিবার মালয়েশিয়ায় মুসলিম নেতাদের উদ্দেশে তুর্কি প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ান বলেন, ‘দেখুন, ইদলিব থেকে আরও ৫০ হাজার আমাদের ভূমিতে আসছে’। তিনি বলেন, ‘ইতোমধ্যেই আমাদের দেশে ৪০ লাখ মানুষ আছে আর এখন আরও ৫০ হাজার আসছে, এই সংখ্যা আরও বাড়তে পারে’।
সিরিয়ার উত্তরপূর্বাঞ্চলে শরণার্থীদের আশ্রয় দেওয়ার কথা বলে ওই এলাকা বিদ্রোহীমুক্ত করতে গত অক্টোবরে অভিযান চালায় তুরস্ক। ‘পিস স্প্রিং’ নামের ওই অভিযানে সেখান থেকে কুর্দি বিদ্রোহীদের উৎখাত করা হলেও শরণার্থীদের সেখানে পাঠানো শুরু করতে পারেনি আঙ্কারা। এরদোয়ান অভিযোগ করেন তাদের এই পরিকল্পনায় মুসলিম বিশ্ব সমর্থন দিচ্ছে না। তিনি বলেন, মুসলিম দেশগুলোসহ বিশ্ব শক্তিগুলো তুরস্কের সেফ জোন স্থাপন পরিকল্পনায় সমর্থন দেওয়ার চেয়ে সিরিয়ায় অস্ত্র পাঠাতে বেশি আগ্রহী। তিনি বলেন, ‘আমরা সেফ জোন প্রতিষ্ঠার কথা বললে তারা (মুসলিম দেশগুলো) কোনও সমর্থন দেয়নি কিন্তু যখন অস্ত্রের কথা হয় তখন অস্ত্র চলে আসে’।