ধর্ষণ নিয়ে ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রীকে কটুক্তি করায় রাউজানে মাদ্রাসা ছাত্র আটক

রাউজান প্রতিনিধি

36

ধর্ষণ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে কটুক্তি করায় রাউজানে জামিল হোসেন (২১) এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গত মঙ্গলবার অভিযান চালিয়ে তার বাড়ি থেকে ক গ্রেপ্তার করে থানা হাজতে নিয়ে আসেন। পরে গত বুধবার উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও পৌরসভার প্যানেল মেয়র জমির উদ্দিন পারভেজ বাদি হয়ে তথ্য প্রযুক্তি আইনে মামলা করলে একইদিন বিকেলে আদালতের মাধ্যমে তাকে জেলে পাঠিয়েছে পুলিশ। গ্রেপ্তার তরুণ জামিল উপজেলার কদলপুর ইউনিয়নের মধ্যম কদলপুর গ্রামের আব্দুল কুদ্দুসের ছেলে। কুটক্তিকারী তরুণ মাদ্রাসা পড়ুয়া ছাত্র ছিলেন। রাউজান থানা ও মামলার এজাহার সূত্রে জানা য়ায়, গত ১৩ অক্টোবর রাত সাড়ে ১২টার সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে জড়িয়ে দেশে ধর্ষণ ঘটনা বেড়ে যাওয়া বিষয় টেনে কুরুচিপুর্ণ লেখা ফেসবুকের একটি ছদ্মনামের আইডি থেকে স্টোরি স্ট্যাটাস দেন জামিল। বিষয়টি রাউজান উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও পৌরসভার প্যানেল মেয়র জমির উদ্দিন পারভেজের নজরে আসে। তার অভিযোগের ভিত্তিতে গত মঙ্গলবার রাতে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এ বিষয়ে রাউজান পৌরসভার প্যানেল মেয়র জমির উদ্দিন পারভেজ বলেন, জাতির জনকের স্বপ্ন বাস্তবায়নে জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশকে যেভাবে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে তা কল্পনাতিত। তাই আমরা যারা বঙ্গবন্ধু আদর্শ বুকে লালন করে রাজনীতি করি। এতে এসব বিষয় আমাদের সহ্য হয়না। তাই আমি নিজেই বাদী হয়ে এই কটুক্তিকারীর বিরুদ্ধে মামলা রুজু করি। ভবিষ্যতে যেন আর কেউ এই ধরনের কাজ করতে না পারে তার জন্য সবাই সজাগ থাকতে হবে। রাউজান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল্লাহ আল হারুন বলেন, গ্রেপ্তার তরুণ ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে কটুক্তি করেছিলেন। এ তরুণ মাদ্রাসার ছাত্র ছিলেন। গত বুধবার বিকেলে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হলে আদালত তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করেন।