দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি নিয়ন্ত্রণে সরকার ব্যর্থ

3

 

চট্টগ্রাম মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি এইচ এম রাশেদ খান বলেন, নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যপণ্যের অস্বাভাবিক ও অযৌক্তিক মূল্যবৃদ্ধিতে নিম্ন আয়ের মানুষের জীবনে নাভিশ্বাস উঠেছে। সরকার দলীয় লুটেরা মুনাফাভোগী সিন্ডিকেট চক্রের দফায় দফায় মূল্যবৃদ্ধির কারণে নিত্যপণ্যের বাজার নিয়ন্ত্রণহীন। মহামারী করোনায় জনজীবন আজ বিপর্যস্ত। তার উপর দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির কারণে জনগণ চোখে ‘সরষে’ ফুল দেখছে। গত ২৬ অক্টোবর নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যসামগ্রীর সীমাহীন মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে চট্টগ্রাম মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের বিক্ষোভ মিছিল পরবর্তী এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। চট্টগ্রাম মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত হোসেন বুলু বলেন, নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য প্রতিদিন অস্বাভাবিকভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে। সরকার এর লাগাম টেনে না ধরে বরং এই দ্রব্যমূল্য ঊর্ধ্বগতির পেছনে যারা জড়িত তাদেরকে উৎসাহিত করছে। ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে জণগণকে সাথে নিয়ে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও দেশনায়ক তারেক রহমানের নেতৃত্বে আন্দোলনের মাধ্যমে এই সরকারকে হটাতে হবে। তখন এদেশের জনগণ দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিসহ সকল সমস্যার সমাধান পাবে। সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সহ-সভাপতি খায়রুল আলম দিপু, মামুনুর রহমান, মঈনুদ্দিন রাশেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক জিয়াউর রহমান জিয়া, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক আলী মুর্তজা খান, যুগ্ম সম্পাদক জমির উদ্দিন নাহিদ, সিরাজুল ইসলাম ভুইয়া, এম. আবু বক্কর রাজু, সহ-সাধারণ সম্পাদক মো. সাজ্জাদ হোসেন, এম এ হানিফ, মো. দিদার হোসেন, আব্দুল মান্নান আলমগীর, মনির হোসেন, জাকির হোসেন, মোকলেছুর রহমান, আব্দুল মান্নান, মো. হাসান, রাসেল খান। এসময় উপস্থিত ছিলেন সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ইকবাল হোসেন রুবেল প্রমুখ।