দেশে আরও ৯ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২৭৮

3

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় শনাক্ত ও মৃত্যু বেড়েছে। স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় (২২ অক্টোবর সকাল ৮টা থেকে ২৩ অক্টোবর সকাল ৮টা পর্যন্ত) করোনায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ২৭৮ জন, শুক্রবার (২২ অক্টোবর) ২৩২ জনের শনাক্ত হওয়ার কথা জানিয়েছিল অধিদফতর। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৯ জন। শুক্রবার মারা গেছেন চার জন। শনাক্ত রোগী এবং মৃত্যুর সঙ্গে গত ২৪ ঘণ্টায় বেড়েছে করোনায় রোগী শনাক্তের হারও। এ সময় রোগী শনাক্তের হার ১ দশমিক ৮৫ শতাংশ, শুক্রবার রোগী শনাক্তের হার ছিল ১ দশমিক ৩৬ শতাংশ।
গতকাল শনিবার স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন শনাক্ত ২৭৮ জনকে নিয়ে দেশে এখনও পর্যন্ত সরকারি হিসাবে মোট করোনা শনাক্ত হয়েছেন ১৫ লাখ ৬৭ হাজার ৪১৭ জন, আর মারা যাওয়া ৯ জনকে নিয়ে করোনায় আক্রান্ত হয়ে সরকারি হিসাবে এ পর্যন্ত মোট ২৭ হাজার ৮১৪ জন মারা গেছেন। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ২৯৪ জন, এ পর্যন্ত মোট ১৫ লাখ ৩০ হাজার ৯৪১ জন সুস্থ হয়েছেন।
স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার নমুনা সংগৃহীত হয়েছে ১৫ হাজার ২টি, আর পরীক্ষা করা হয়েছে ১৫ হাজার ৪২টি।
দেশে এ পর্যন্ত করোনার মোট নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১ কোটি ২ লাখ ৩ হাজার ৬৬৫টি। অধিদফতর জানায়, এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা হয়েছে ৭৪ লাখ ৪৭ হাজার ১৫৮টি, আর বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা করা হয়েছে ২৭ লাখ ৫৬ হাজার ৫০৭টি।খবর বাংলা ট্রিবিউনের।
দেশে এখনও পর্যন্ত করোনায় রোগী শনাক্তের হার ১৫ দশমিক ৩৬ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯৭ দশমিক ৬৭ শতাংশ, আর শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুহার এক দশমিক ৭৭ শতাংশ।
গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত ৯ জনের বয়স বিবেচনায় ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে রয়েছেন একজন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে একজন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে একজন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে চার জন, আর ৮১ থেকে ৯০ বছরের মধ্যে দুই জন।
তাদের মধ্যে ঢাকা, চট্টগ্রাম ও খুলনা বিভাগের রয়েছেন দুই জন করে, আর সিলেট, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগের রয়েছেন একজন করে। মারা যাওয়া ৯ মধ্যে সরকারি হাসপাতালে মারা গেছেন সাত জন, বেসরকারি হাসপাতাল আর বাড়িতে মারা গেছেন একজন করে।
৩৫ জেলায় শনাক্ত নেই, ২৫ জেলায় এক অঙ্কের : এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের ৩৫ জেলায় নতুন করে কারো করোনা শনাক্ত হয়নি। ২৫ জেলায় শনাক্ত হয়েছেন এক অঙ্কের ঘরে। আর বাকি চার জেলায় শনাক্ত হয়েছেন একাধিক রোগী।
অধিদফতরের দেওয়া তথ্যানুযায়ী, দেশের আটটি বিভাগের মধ্যে ঢাকা বিভাগের ঢাকা মহানগরসহ ঢাকা জেলায় শনাক্ত হয়েছেন ১৮১ জন, চট্টগ্রাম বিভাগের চট্টগ্রাম জেলায় ১০ জন, রংপুর বিভাগের রংপুর জেলায় ১০ জন, আর খুলনা বিভাগের কুষ্টিয়া জেলায় শনাক্ত হয়েছেন ১৮ জন।
এছাড়া, ঢাকা বিভাগের গাজীপুর, গোপালগঞ্জ, কিশোরগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ ও টাঙ্গাইল জেলায়, চট্টগ্রাম বিভাগের কক্সবাজার, ফেনী, নোয়াখালী, চাঁদপুর ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া, রাজশাহী বিভাগের চাঁপাইনবাবগঞ্জ, পাবনা, সিরাজগঞ্জ ও বগুড়া, রংপুর বিভাগের নীলফামারী, লালামনিরহাট, দিনাজপুর ও গাইবান্ধা, খুলনা বিভাগের চুয়াডাঙ্গা, যশোর, ঝিনাইদহ ও খুলনা, বরিশাল বিভাগের বরিশাল ও সিলেট বিভাগের সিলেট জেলায় একজন করে রোগী শনাক্ত হয়েছেন।
অপরদিকে, ঢাকা বিভাগের ফরিদপুর, মাদারীপুর, মানিকগঞ্জ, মুন্সিগঞ্জ, নরসিংদী, রাজবাড়ী ও শরীয়তপুর, ময়মনসিংহ বিভাগের ময়মনসিংহ, নেত্রকোনা, জামালপুর ও শেরপুর, চট্টগ্রাম বিভাগের বান্দরবান, রাঙ্গামাটি, খাগড়াছড়ি, লক্ষীপুর ও কুমিল্লা, রাজশাহী বিভাগের রাজশাহী, নাটোর, নওগাঁ ও জয়পুরহাট, রংপুর বিভাগের পঞ্চগড়, কুড়িগ্রাম ও ঠাকুরগাঁও, খুলনা বিভাগের বাগেরহাট, মাগুড়া, মেহেরপুর, নড়াইল ও সাতক্ষীরা, বরিশাল বিভাগের পটুয়াখালী, ভোলা, পিরোজপুর, বরগুণা ও ঝালকাঠি এবং সিলেট বিভাগের সুনামগঞ্জ, হবিগঞ্জ ও মৌলভীবাজার জেলায় গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে কেউ শনাক্ত হননি।