দেশের প্রথম বয়স ভিত্তিক সাঁতার প্রতিযোগিতার আসর চট্টগ্রামেই

98

প্রথম যে কোন আয়োজনে ভুল ত্রুটি থাকাটা অস্বাভাবিক নয়। সেদিক থেকে সামগ্রিক বিচারে সদ্য সমাপ্ত শেখ রাসেল বয়সভিত্তিক সাঁতার প্রতিযোগিতা ভালোভাবে শেষ হয়েছে বলা চলে। বাংলাদেশ সুইমিং ফেডারেশনের ইতিহাসে যেমন প্রথম বারের মত কোন ক্লাব কাপ সাঁতার প্রতিযোগিতার ব্যবস্থা করা হলো ঠিক তেমনি চট্টগ্রাম জেলা ক্রীড়া সংস্থা কেবল নয় স্বাধীনতার পর চট্টগ্রামের ইতিহাসেও প্রথম কোন জাতীয় পর্যায়ের সাঁতার প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হলো। সিটি মেয়র আ.জ.ম নাছির উদ্দীনের অকৃত্রিম সহযোগিতার কারণে চট্টগ্রামে শেখ রাসেল বয়সভিত্তিক সাঁতার প্রতিযোগিতা আয়োজন করা সম্ভব হয়েছে। যেহেতু চট্টগ্রামে এতোদিন সাঁতার প্রতিযোগিতা করার জন্য কোন সুইমিংপুল ছিলো না, তাই প্রতিযোগিতা করার সুযোগও ছিলোনা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চট্টগ্রামের উন্নয়নের দায়িত্ব নিজ হাতে তুলে নেয়ার পর চট্টগ্রামে একটি সুইমিংপুল স্থাপনের প্রয়োজনীয়তা সবার আগে চলে আসে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আন্তরিকতার ফসল এবং চট্টগ্রাম জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক আ. জ. ম নাছির উদ্দীনের নিরন্তর ও জোড়ালো ভ‚মিকার কারণে সিজেকেএস সুইমিংপুল এখন আর স্বপ্ন নয় বরং সুইমিংপুল চালু হওয়ার মাত্র এক মাসের মধ্যে সুইমিংপুলে অনুষ্ঠিত হলো শেখ রাসেল বয়সভিত্তিক সাঁতার প্রতিযোগিতা। গত ১০ই সেপ্টেম্বর যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহেদ হাসান রাসেল সিজেকেএস সুইমিংপুল উদ্বোধন করেন আর ১১-১২ অক্টোবর ২ দিন ব্যাপি প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয় যার ব্যবস্থাপনায় ছিল বাংলাদেশ সুইমিং ফেডারেশন। পুরো প্রতিযোগিতার খরচ নির্ধারণ করা হয়েছিল ১৫ লক্ষ টাকা। যার পুরো টাকা প্রদান করে পৃষ্ঠপোষক চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন। আর প্রতিযোগিতার সার্বিক সহযোগিতায় ছিল চট্টগ্রাম জেলা ক্রীড়া সংস্থা। বাংলাদেশ সুইমিং ফেডারেশনের অনুমোদিত ৪৫ টি সুইমিং ক্লাব প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়। প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয় ৩ টি গ্রæপে। অনূর্ধ্ব ১২, ১৩-১৪, ১৫-১৭। দুই দিনের প্রতিযোগিতায় ৪৪ টি ইভেন্ট অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিযোগিতায় ১৬২ জন বালক ও ৬৫ জন বালিকা অংশ নেয়। প্রয় ৪৫ জন মিট অফিসিয়াল, ফেডারেশন কর্মকর্তা, ক্লাব কর্মকর্তা মিলে প্রয় ৩২৫ জনে একটি বিশাল বহর ছিল এই আয়োজনে। প্রতিযোগিতায় বালক গ্রুপে ইছামতি সুইমিং ক্লাবের মো: রাতুল ৬ টি স্বর্ণ নিয়ে এবং বালিকা গ্রুপের ঢাকা ওয়ান্ডারার্স ক্লাবের মুক্তা খাতুন স্ব স্ব গ্রুপে শীর্ষ স্থান দখল করে।
দেশের ফুটবলে এই চট্টগ্রামের আশীষ ভদ্র, এফ আই কামালরা এক যুগ ধরে দাপটে রাজত্ব করেছিল। তাদের উত্তরসুরি হয়ে জাতীয় দলে চট্টগ্রামের আরমান আজিজ, মামুনরা প্রতিনিধিত্ব করছে। জাতীয় ক্রিকেটে নান্নু, আকরামদের অবস্থান দৃঢ়তর করছে চট্টগ্রামের তামিম। একদিন সময় আসবে আমাদের কোন এক সাঁতারু চট্টগ্রামের নাম উজ্জ্বল করবে এই সুইমিংপুল থেকে। সেই সাঁতারু গড়ার পেছনে আজকের শেখ রাসেল বয়সভিত্তিক সাঁতার প্রতিযোগিতা অনুপ্রেরণার উৎস হয়ে থাকবে।