দেশের প্রতিটি আন্দোলন সংগ্রামে মুক্তিযোদ্ধার অবদান স্মরণীয়

7

 

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক (ডিসি) মোহাম্মদ মমিনুর রহমান বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে আমরা স্বাধীন ও সার্বভৌম বাংলাদেশ পেয়েছি। দেশের প্রত্যেক আন্দোলন-সংগ্রামে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের অবদান অবিস্মরণীয়। দেশের স্বাধীনতা সহ্য করতে না পেরে পাকিস্তানী বর্বর বাহিনী ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতাকে সপরিবারে হত্যা করে। তাই স্বাধীন বাংলাদেশে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের অবদান চির অম্লান হয়ে থাকবে।
গতকাল সোমবার বেলা সাড়ে ১১ টায় বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চট্টগ্রাম মহানগর ও জেলা ইউনিট কমান্ড কর্তৃক শিল্পকলা একাডেমিতে আয়োজিত বদলীজনিত বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধ দেখিনি, কিন্তু বীর মুক্তিযোদ্ধাদের দেখেছি। বীর মুক্তিযোদ্ধাদের কাছ থেকে সংবর্ধনা গ্রহণ করার বিষয়টি মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান হিসেবে সারাজীবনের জন্য অনন্য উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। এ সম্মান সর্বোচ্চ সম্মান। যতদিন বেঁচে থাকবো ততদিন বীর মুক্তিযোদ্ধাদের কল্যাণে নিজেকে নিয়োজিত রাখার পাশাপাশি মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা অন্তরের অন্তঃস্থলে ধারণ করবো। যেখানেই থাকি চট্টগ্রামের প্রত্যেক বীর মুক্তিযোদ্ধার মুখ ও চেহারা মনে থাকবে।
অনুষ্ঠানের শুরুতে উপস্থিত মহানগর জেলা-উপজেলা কমান্ডের কর্মকর্তা, বীর মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ ও মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের নেতৃবৃন্দ ক্রেস্ট, সম্মাননা স্মারক, ছবি ও ফুল দিয়ে জেলা প্রশাসককে বিদায় সংবর্ধনা প্রদান করেন।
ডিসি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে আন্তরিকভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে এখন উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদায় বাংলাদেশ। সরকারের যে কোনো উন্নয়ন কর্মকান্ডে বীর মুক্তিযোদ্ধারা আন্তরিক ছিল বলেই বঙ্গবন্ধু কন্যার নেতৃত্বে দেশ এখন উন্নয়নের রোল মডেল। সরকারের সার্বিক উন্নয়ন কর্মকান্ডে সরকারের পাশাপাশি বীর মুক্তিযোদ্ধারাসহ স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তি সামিল হলে আগামি ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে পারবো।
বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চট্টগ্রাম মহানগর ইউনিট কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মোজাফফর আহমদের সভাপতিত্বে ও মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি মো. সরওয়ার আলম চৌধুরী মনির সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মু. মাহমুদ উল্লাহ মারূফ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চট্টগ্রাম জেলা ইউনিটের ভারপ্রাপ্ত কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা একেএম সরোয়ার কামাল দুলু। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের অন্যতম স্বাক্ষী বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজী নুরুল আবছার, মহানগর মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সহকারী কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা সাধন চন্দ্র বিশ্বাস, জেলা ইউনিটের সহকারী কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা একেএম আলাউদ্দিন, আকবরশাহ থানার ডেপুটি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. নূর উদ্দিন, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের সদস্য মো. ওয়াহিদ মুরাদ। জেলা ও মহানগরীর বীর মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের সদস্য রিপন চৌধুরী, সৈয়দ মাঈনুল আলম সৌরভ, কাউসার চৌধুরী, কামাল আহমেদ টিটু, মো. হারুনুর রশিদ প্রমুখ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। বিজ্ঞপ্তি