হাটহাজারী

ত্রাণ নিতে আসা লোকজনকে মারধরের অভিযোগ

হাটহাজারী প্রতিনিধি

13

ত্রাণ নিতে আসা কর্মহীন অসহায় মানুষদের মারধর করার অভিযোগ উঠেছে এক ইউপি চেয়ারম্যানের ভাইয়ের বিরুদ্ধে। গতকাল সোমবার দুপুরে হাটহাজারী উপজেলার ৩নং মির্জাপুর ইউনিয়ন পরিষদে এ ঘটনা ঘটে। এমন ন্যাক্কারজনক ঘটনার পর বিকাল নাগাদ কর্মহীন অসহায় মানুষগুলো উপজেলা পরিষদের সামনে জড়ো হয়ে একযোগে ইউএনও’র সাথে দেখা করে তাদেরকে মারধর কারার বিষয়টি জানান।
জানা গেছে, গত শনিবার করোনার ত্রাণ নিয়ে উপজেলা ৩নং মির্জাপুর ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল আবছারের অনিয়মের অভিযোগ এনে তার পরিষদের ৮ জন ইউপি সদস্য উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) রুহুল আমিনের বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেন। এনিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে চেয়ারম্যানের অনিয়মের বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশিত হয়। এরপর বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে আমলে নেয় স্থানীয় প্রশাসন। শুরু হয় উপজেলাজুড়ে আলোচনা-সমালোচনার ঝড়।
মারধরের শিকার নারী-পুরুষরা অভিযোগ করে বলেন, সোমবার (৬ এপ্রিল) দুপুরে ইউপি চেয়ারম্যানের এমন অনিয়মের বিরুদ্ধে চট্টগ্রাম জেলা অফিসের একটি তদন্ত টিম মির্জাপুর ইউনিয়ন পরিষদে আসে। উক্ত তদন্ত টিমের সামনে লোক দেখানোর জন্য বিতর্কিত চেয়ারম্যান নুরুল আবছার কর্মহীন মানুষদের গাদাগাদিভাবে জমায়েত করে ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম চালায়। পরিষদ থেকে তদন্ত টিম চলে যাওয়ার পর চেয়ারম্যান ও তার ছোট ভাই মিজানুর রহমান টিপু ওই অসহায় মানুষগুলোকে মারধর শুরু করে এবং লাটিসোটা নিয়ে তাড়িয়ে দেয়।
এ ব্যাপারে জানতে ইউপি চেয়ারম্যানের ব্যক্তিগত মুঠোফোনে কয়েকবার ফোন করা হলে তিনি রিসিভি করেননি।
ইউএনও রুহুল আমিন জানান, ত্রাণ দেওয়ার কথা বলে ডেকে এনে অসহায় মানুষগুলোকে মির্জাপুরের চেয়ারম্যান ও তার ছোট ভাই মারধর করে তাড়িয়ে দিয়েছে। তাড়া খেয়ে তারা আমার কার্যালয়ের সামনে এসে ভিড় করে এবং দেখা করে চেয়ারম্যান ও তার ছোট ভাইয়ের বিরুদ্ধে নালিশ করে। পরে আমি এ বিষয়টি খতিয়ে দেখছি এমনটা জানিয়ে ২৬ জন অসহায় মানুষকে ত্রাণ ভর্তি ‘ভালোবাসার তলে’ দিয়ে বাড়িতে পৌঁছে পাঠিয়ে দিই।