তিনজন লাফ দিল উঠে এল ২ জন

63

নিজস্ব প্রতিবেদক

কিশোরের দুরন্তপনা অনেক সময় বড় ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়ায়। তারা অনেক সময় নদী-নালা, খাল-বিলে নানা দুরন্তপনায় মেতে উঠে। এতে অনেক সময় তাদের জীবনও বিপন্ন হয়। তবুও তারা নিজেদের জীবনের নিরাপত্তার কথা পরোয়া করে না। তেমনি একটি ঘটনা ঘটেছে গতকাল শুক্রবার কর্ণফুলী নদীতে।
নগরীর কোতোয়ালী থানাধীন পাথরঘাটা গঙ্গাবাড়ি নামক স্থানে দুরন্তপনায় মেতে উঠে একদল কিশোর। এসময় তিন বন্ধু নদীতে লাফ দেয়। কিন্তু তাদের দুইজন কূলে উঠে আসলেও অপরজন উঠে আসতে পারেনি সাঁতার না জানার কারণে। পরে তার মৃত্যু হয়।
জানা যায়, নিহত কিশোরের নাম পিয়ন দাস (১৪)। সে নগরীর নাসিরাবাদ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণির ছাত্র। সে গঙ্গবাড়ি তথা নোয়াপাড়া এলাকার গোবিন্দ দাসের ছেলে।
পিয়ন দাসের স্বজন লিমা দাশ পূর্বদেশকে জানান, খেলাধুলা শেষে ৪/৫ জন কিশোরের একটি দল কর্ণফুলী নদীতে গোসল করতে যায়। এদের মধ্যে পিয়ন, সবুজ ও বিশাল তারা তিনজন নদীতে ঝাঁপ দেয়। এসময় সবুজ ও বিশাল নদী থেকে উঠে আসতে পারলেও পিয়ন সাঁতার না জানায় আর কূলে উঠতে পারেনি। পরে তাকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানকার চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।
এ বিষয়ে পাঁচলাইশ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সাদিকুর রহমান নিহতের পরিবারের বরাত দিয়ে জানান, খেলাধুলা শেষ করে কর্ণফুলী নদীর গঙ্গাবাড়ি নামক স্থানে তারা কয়েকজন বন্ধু গোসল করতে নামে। এসময় সাঁতার না জানার কারণে পানি খেয়ে পিয়ন দাস নামে এক কিশোরের মৃত্যু হয়। বর্তমানে লাশ মর্গে আছে।
তবে প্রতিনিয়ত এমন দুর্ঘটনার পরেও এ বিষয়ে সচেতনতার কোন পদক্ষেপ নেয়া হয় না কোন পক্ষ থেকে। এ ধরনের দুর্ঘটনা এড়াতে বিভিন্ন সচেতনতামূলক পদক্ষেপ জরুরি বলে মনে করেন অনেকে।