টেকনাফে ৩ বনপ্রহরীকে অপহরণ, মুক্তিপণ দাবি

9

কক্সবাজার প্রতিনিধি

কক্সবাজারের টেকনাফ থেকে বন বিভাগের পাহারা দলের ৩ কর্মীকে অপহরণ করেছে সন্ত্রাসীরা। গত শুক্রবার সকালে তাদেরকে অপহরণ করা হয়। এরপর থেকে তারা সন্ত্রাসীদের কাছে জিম্মি রয়েছেন। সন্ত্রাসীরা তাদের পরিবারের কাছে ৬০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করেছে।
জানা গেছে, গত শুক্রবার সকাল ৮টা থেকে বেলা ১১টার মধ্যে টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের মোচনী বিটের নেচার পার্ক বনে পাহারা দেওয়ার সময় ৩ বনপ্রহরীকে অপহরণ করা হয়। অপহৃতরা হলেন হ্নীলার দমদমিয়া এলাকায় আবদুল মালেকের ছেলে মো. শাকের (২০), বকসু মিয়ার ছেলে আবদুর রহমান (৪২) ও আবদু শুক্কুরের ছেলে আবদুর রহিম (৪৬)।
শুক্রবার তাদেরকে অপহরণ করার পর গতকাল শনিবার সকালে সন্ত্রাসীরা অপহৃতদের পরিবারের কাছে ফোন করে। ফোনে সন্ত্রাসীরা জানায়, ৩ প্রহরী তাদের কাছে জিম্মি রয়েছেন। একই সাথে ৩ প্রহরীর প্রত্যেকের পরিবারের কাছে ২০ লাখ করে ৬০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে সন্ত্রাসীরা।
টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য মোহাম্মদ আলী জানান, ৩ জনকে নেচার পার্ক থেকে অপহরণ করা হয়েছে। তারা বেসরকারি সংস্থা ‘নিসর্গের’ অধীনে বন পাহারাদার ছিলেন। পুলিশসহ স্থানীয় জনতা তাদের উদ্ধারের চেষ্টা করলেও গতকাল পর্যন্ত তাদের উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। সকালে ফোনে মুক্তিপণ দাবি করা হয়েছে।
টেকনাফ বন বিভাগের ভারপ্রাপ্ত রেঞ্জ কর্মকর্তা আবুল কালাম সরকার বলেন, বন থেকে আমাদের ৩ জন পাহারাদারের খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না। শুক্রবার দিনের একটা সময়ের পর থেকে তাদের খোঁজ না পাওয়ায় ধারণা করা হচ্ছে পাহাড়ি সন্ত্রাসীরা তাদের অপহরণ করে নিয়ে গেছে। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সহায়তায় আমরা তাদের উদ্ধারের চেষ্টা করছি। সন্ত্রাসীরা মুক্তিপণ দাবি করছে।
টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জোবাইর সৈয়দ বলেন, অপহৃত ৩ প্রহরীকে উদ্ধারে পুলিশ সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।