‘টাইটেল’ পাল্টে ভুল তথ্য দিয়ে এনআইডি

85

বাবার বাড়ি হাটহাজারী। মামার বাড়ি আমিরাবাদ। নিজে থাকেন কক্সবাজার। প্রকৃত নাম রূপন চৌধুরী হলেও টাইটেল পাল্টে চৌধুরীর স্থলে বসিয়েছেন মজুমদার। মা ঝুনু মজুমদারের টাইটেল (বংশীয় উপাধি) অনুসারে নিজের নামের শেষে মজুমদার শব্দ বসালেও পিতা তুষার কান্তি চৌধুরীর নামের শেষে মজুমদার টাইটেল জুড়ে দিয়েছেন। আর এমন অনিয়মের আশ্রয় নিয়ে নির্বাচন কমিশনে মিথ্যা ও ভুল তথ্য দিয়ে প্রতারণার মাধ্যমে জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) সংগ্রহ করেছেন। সম্প্রতি এমন একটি অভিযোগের তদন্ত করছে কক্সবাজার সদর নির্বাচন অফিস।
অভিযোগের বিষয়ে কক্সবাজার সদর নির্বাচন অফিসার শিমুল শর্মা পূর্বদেশকে বলেন, ’বাবা ও নিজের নামের টাইটেল পরিবর্তন করে এনআইডি কার্ড বানানোর একটি অভিযোগ পেয়েছি। যে কেউ চাইলে টাইটেল পাল্টাতে পারে। তবে বাবার নাম পাল্টানো নিয়ে হয়তো একটু সন্দেহ জেগেছে। তবে যতটুকু বুঝেছি টাইটেল পাল্টানোর সাথে জায়গা সম্পত্তি ও মান-মর্যাদার বিষয় জড়িত আছে। এরপরও এনআইডিতে কি তথ্য দিয়েছে তা দেখতে হবে। তবে অবস্থা বুঝে মনে হচ্ছে এ অভিযোগ নিষ্পত্তি করতে পারবে আদালত। আদালত আমাদের কাছে তথ্য চাইলে আমরা দিব। বিষয়টি আমি ফাইলে নোট দিয়ে রাখবো।’
অভিযোগকারীরা বলেন, রূপন চৌধুরী নিজের নাম পাল্টে মজুমদার টাইটেল ব্যবহার করে লোহাগাড়ার আমিরাবাদে মামার বাড়িতে প্রভাব বিস্তার করতে চাইছেন। তার বাবা তুষার কান্তি চৌধুরী বিভিন্ন জায়গা বিক্রি কিংবা ওয়ারিশন সার্টিফিকেটে নিজের নাম ঠিক রাখলেও ছেলে রূপন নিজের আইডি কার্ডে পিতার নামের টাইটেল জুড়ে দিয়েছেন মজুমদার। কক্সবাজারের পূর্ব বাজারঘাটা থেকে বানানো এনআইডি কার্ডেও নিজের ও বাবার নামের টাইটেল পরিবর্তন করেছেন। একইভাবে স্থায়ী ঠিকানা পৈত্রিক নিবাস হাটহাজারীর পরিবর্তে লোহাগাড়া উল্লেখ করেন। আবার রূপনের মা ঝুনু মজুমদারের এনআইডি কার্ডে ঠিকানা উল্লেখ আছে নগরীর চর মোহরা সি ব্লক। আর স্বামীর নাম তুষার উল্লেখ থাকলেও কোনও টাইটেল নেই। রূপনের ভিন্ন ভিন্ন ঠিকানা ও টাইটেল পরিবর্তনের পেছনে অন্য কোনও অসৎ উদ্দেশ্য আছে। তিনি বিভিন্ন ঠিকানা ব্যবহার করে নানা ফায়দা হাসিল করছেন। বিষয়টি তদন্ত করলেই বের হবে।
অভিযোগের বিষয়ে রূপন মজুমদার পূর্বদেশকে বলেন, ‘বিভিন্ন ঠিকানা ব্যবহার করতে কোনও দোষ নেই। টাইটেল পাল্টালেও কোনও সমস্যা নেই। তবে যা হয়েছে তা ভুল করে হয়েছে।’ এনআইডি সংশোধন করার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘সংশোধন করবো না। এটি সংশোধন করলে আমার সমস্যা আছে। আমার অনেক ক্ষতি হয়ে যাবে।’