জেল খেটেছিলেন শাহরুখ খান!

35

সিনেমার পর্দায় বহুবার কারাভোগ করতে হয়েছে কিং খানকে। কিন্তু সত্যিসত্যিই ক্যারিয়ারের শুরুতে নাকি কারাভোগ করতে হয়েছিল তাকে। এ কথা নিজেই জানিয়েছেন বলিউড বাদশাহ শাহরুখ খান। স¤প্রতি ডেভিড লেটারম্যানের সঞ্চালনায় নেটফ্লিক্সে ‘মাই নেক্সট গেস্ট নিডস নো ইন্ট্রোডাকশন’-এ বিভিন্ন বিষয়ে আলাপকালে কারাগারে রাত কাটানোর বিষয়টি স্বীকার করেন ‘এসআরকে’।
শাহরুখ বলেন, সেসময় সোশ্যাল মিডিয়া ছিল না। এত টিভি চ্যানেল ও অনলাইন মাধ্যমও ছিল না। ছিল বলতে খবরের কাগজ আর ম্যাগাজিন। আর যেহেতু সেসময় আমি বলিউডে একেবারেই নতুন ছিলাম, তাই আমাকে নিয়ে প্রকাশিত যে কোনো ভুলভাল খবরে ভীষণ রেগে যেতাম। এমনই একটি খবরে আমি ভীষণ বিরক্ত হয়ে গিয়েছিলাম। ওই ম্যাগাজিনের সম্পাদককে ফোন করে প্রশ্ন করে বসেছিলাম, ‘এই প্রতিবেদনটি কি আপনি লিখেছেন?’ তিনি আমাকে বোঝানোর চেষ্টা করেন, ‘এটা নেহাতই মজা, এতে রাগার কিছুই নেই’। আমি পাল্টা প্রশ্ন করি, ‘এটাকে আপনার মজার বিষয় মনে হচ্ছে?’ এরপরই আমি তার অফিসে যাই, আর তার সঙ্গে দুর্ব্যবহার করে ফেলি।
তিনি বলেন, এরপর একদিন আমি শ্যুটিং করছিলাম। পুলিশ এসে খুব নমনীয়ভাবেই আমায় বলে, আপনাকে বেশ কিছু প্রশ্ন করার আছে। তারপরই আমায় জেলে ভরে দেওয়া হল। তবে যখন জেলে গেলাম, তখন আমি বুঝতে পারলাম, জায়গাটা কী অসম্ভব বিদঘুটে। দেখি একটি ছোট্ট কয়েদখানার মধ্যেই অসংখ্য লোক থাকে। একেবারে নোংরা পরিবেশ। পরে অবশ্য আমি পুলিশকে অনুরোধ করি আমাকে ছেড়ে দেওয়ার জন্য, বলি এমনটা আর কখনো হবে না। তারা আমাকে ছেড়েও দেন।
এখানেই অবশ্য শেষ নয়, ডেভিড লেটারম্যানের ওই অনুষ্ঠানে এসে আরও অনেক কথাই তুলে ধরেন শাহরুখ। যার ঝলক মিলেছে এর ট্রেলারে। প্রসঙ্গত শাহরুখকে শেষবার দেখা গেছে আনন্দ এল রাই এর ‘জিরো’ ছবিতে। ছবিটি বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পড়ার পর থেকে আপাতত বড় পর্দা থেকে দূরেই রয়েছেন কিং খান।