জেলেরা বৈজ্ঞানিক নিয়ম জানলে হালদার মৎস্যক্ষেত্র এগিয়ে যাবে

11

রাউজান প্রতিনিধি

রেলপথ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি বলেছেন হালদাকে রক্ষা করতে হালদা পাড়ের পোনাসংগ্রহকারী জেলেদেরও এগিয়ে আসতে হবে। আগামী মৌসুমে সুষ্টভাবে পোনা সংগ্রহ করতে আধুনিক বৈজ্ঞানিক নিয়ম জেলেরা জানলে পূর্বের চেয়ে বেশী পোনা সংগ্রহ করা সম্ভব হবে। রাউজান উপজেলা পরিষদের ব্যবস্থাপনায় ও স্থানীয় সরকার বিভাগ এবং জাইকা’র সার্বিক সহযোগিতায় হালাদার জেলে ও সংশ্লিষ্টদের নিয়ে আধুনিক পদ্ধতিতে হালদা নদীর কার্প জাতীয় পোনা মাছের নার্সারি ব্যবস্থাপনা বিষয়ক প্রশিক্ষণের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।
গতকাল ২৩ এপ্রিল শনিবার উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জোনায়েদ কবির সোহাগের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান একেএম এহেছানুল হায়দার চৌধুরী বাবুল, পৌরসভার মেয়র জমির উদ্দিন পারভেজ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণীবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক ড. মো.মনজুরুল কিবরীয়া, থানার ওসি আব্দুল্লাহ আল হারুন, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা নুর আলম দ্বীন, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মনিরুজ্জামান চৌধুরী।
এদিকে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের বাস্তবায়নে ২০২১-২২ অর্থ বছরে কৃষি পুনর্বাসন কর্মসূচির আওতায় খরিপ-১ মৌসুুমে ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষে রাউজানের ৬০০ জন কৃষকের মাঝে বিনামূল্যে আউশ ধানের বীজ ও সার বিতরণ করা হয়েছে। উপজেলা পরিষদ চত্ত¡রে প্রধান অতিথি থেকে এসব ধানের বীজ ও সার বিতরণ করেন স্থানীয় সাংসদ ও রেলপথ মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী। এতে উপজেলার ১৪ ইউনিয়ন ও পৌর এলাকার প্রতিজন কৃষককে ১ বিগা করে চাষের জন্য ২০ কেজি ডিএপি সার, ১০ কেজি এমওপি সার ও ৫ কেজি করে উফশী ধানের বীজ সহ মোট ১২হাজার কেজি ডিএপি সার, ৬ হাজার কেজি এমওপি সার ৩হাজার কেজি বীজ বিতরণ করা হয়।
রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসার জোনায়েদ কবির সোহাগের সভাপতিত্বে এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ইমরান হোসাইন। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান একেএম এহেছানুল হায়দর চৌধুরী বাবুল, পৌরসভার মেয়র জমির উদ্দিন পারভেজ, থানার ওসি আবদুল্লাহ্ আল হারুন, রাউজান সদর ইউপি চেয়ারম্যান বিএম জসিম উদ্দিন হিরু। উপস্থিত ছিলেন উপ সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা কাজী আতিকুর রহমান চৌধুরী, উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা সঞ্জীব কুমার শীল সহ বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও কৃষি কর্মকর্তাবৃন্দ।
এসময় প্রধান অতিথি এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি বলেন, সরকার কৃষিখাতে উন্নয়নের জন্য সব সময় কৃষকদের সহযোগিতা করে আসছে। উৎপাদন আরো বৃদ্ধি করতে কৃষকদের উৎসাহিত করে সবসময় পাশে আছি। অন্যদিকে একই দিন প্রধান অতিথি এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বাস্তবায়নে ও জনস্বাস্থ্য পুষ্টি প্রতিষ্ঠানের আয়োজনে জাতীয় পুষ্টি সপ্তাহ, উপজেলা পরিষদ লাইব্রেরী, ও ইউজিডিপির উদ্যোগে করোনা মহামারীতে কর্মহারা বেকার যুবকদের জন্য ড্রাইভিং প্রশিক্ষণের উদ্বোধন করেন।