জুমাতুল বিদা মসজিদে মুসল্লিদের ঢল

11

নিজস্ব প্রতিবেদক

চট্টগ্রামসহ সারাদেশে যথাযোগ্য মর্যাদা ও ধর্মীয় ভাব গাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে গতকাল শুক্রবার পবিত্র জুমাতুল বিদা পালন করেছেন মুসলমানরা। নগরীর জমিয়াতুল ফালাহ ও আন্দরকিল্লা শাহী জামে মসজিদসহ সকল মসজিদে বিশেষ মর্যাদা সহকারে জুমাতুল বিদা পালন করা হয়। এছাড়া দেশের জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমসহ দেশের সব মসজিদেও দেশ ও জাতির কল্যাণ এবং শান্তি কামনা করে দোয়া ও মৃত ব্যক্তিদের মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।
প্রতি শুক্রবার বা জুমার দিন সারা বিশ্বের মুসলমানদের কাছে ধর্মীয় বিবেচনায় বিশেষ ফজিলতের একটি দিন। এর মধ্যে পবিত্র রমজান মাসের শেষ শুক্রবার ‘জুমাতুল বিদা’ সবচেয়ে বেশি তাৎপর্যপূর্ণ হিসেবে বিবেচনা করা হয়। এই দিন আল-কুদস দিবস হিসেবেও পালন করেন ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা। ‘জুমাতুল বিদা’য়ে ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা মহান আল্লাহর কাছে মাগফিরাত কামনা করেন। এদিন শত শত মুসল্লি মসজিদে জায়গা না পেয়ে রাস্তায় জায়নামাজ এবং খবরের কাগজ বিছিয়ে প্রখর রোদ ও তপ্ত সড়ক উপেক্ষা করে নামাজ আদায় করেন।
জুমাতুল বিদা’র সালাম আদায় করতে আজানের আগেই দলে দলে মসজিদে চলে আসেন মুসল্লিরা। আজানের পর মসজিদগুলোতে তিলধারণের ঠাঁই ছিল না। প্রায় প্রতিটি মসজিদে নামাজের কাতার মসজিদ প্রাঙ্গণ ছাড়িয়ে আশপাশের সড়ক পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়ে।
নগরীর আন্দরকিল্লাসহ কয়েকটি এলাকায় জুমার নামাজ চলাকালে সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। সকল বয়সের এবং শ্রেণি পেশার মানুষ এক কাতারে সামিল হয়ে পবিত্র জুমার নামাজ আদায় করেন। নামাজ শেষে ইমাম ও খতিবগণ দেশ, জাতি ও মুসলিম উম্মাহর সমৃদ্ধি কামনা করে বিশেষ দোয়া করেন। নামাজের আগে খতিবগণ যাকাত, ফিতরার ফজিলত ও ঈদের দিনের করণীয় বর্ণনা করেন।
ঐতিহাসিক আন্দরকিল্লা শাহী জামে মসজিদ, জমিয়াতুল ফালাহ মসজিদ, লালদীঘি জামে মসজিদ, হযরত শাহ আমানত খান দরগাহ মসজিদ, এনায়েত বাজার শাহী জামে মসজিদ, ধনিয়ালাপাড়ার বায়তুশ শরফ জামে মসজিদ, পাঠানটুলি চট্টেশ্বরাই গায়েবি মসজিদ, ফিরিঙ্গি বাজার জামে মসজিদ, মুরাদপুর মসজিদে বেলাল, বহদ্দারহাট জামে মসজিদ, মেহেদিবাগ সিডিএ আবাসিক এলাকা জামে মসজিদ, কাজির দেউড়ি জামে মসজিদ, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ, চান্দগাঁও আবাসিক এলাকা জামে মসজিদ, সিজিএস কলোনি জামে মসজিদ, জাম্বুরি মাঠ জামে মসজিদ, বন্দরটিলা হযরত আলী শাহ জামে মসজিদসহ নগরীর বেশিরভাগ মসজিদে ছিল মুসল্লির উপচেপড়া ভিড়।
গতকাল শুক্রবার জুমাতুল বিদা উপলক্ষে দেশের সবচেয়ে বড় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে বিশেষ মোনাজাত করেন খতিব মাওলানা রুহুল আমিন। এসময় দেশের কল্যাণ এবং বিশ্ব মুসলিমের শান্তি ও সমৃদ্ধির জন্য দোয়া করা হয়।
জুমাতুল বিদা মূলত রমজান মাস শেষ হয়ে যাওয়ার সতর্কতামূলক একটি দিবস। মুসলমানদের কাছে দিনটির তাৎপর্য ও মাহাত্ম্য অনেক বেশি। রমজান মাসের সর্বোত্তম দিবস হলো জুমাতুল বিদা। যা মাহে রমজানের শেষ শুক্রবার পালিত হয়। আগের দিন গত বৃহস্পতিবার পবিত্র শবে কদরে মুসল্লিরা মসজিদে, বাসায়, ইবাদতখানায় পবিত্র কোরআন তিলাওয়াত, নফল নামাজ, জিকির আজগার করেন। অনেকে রাতে আত্মীয় স্বজনের কবর জিয়ারত করে তাদের আত্মার মাগফিরাতও কামনা করা হয়।