ছুটি না দিয়ে ভোটার কমাতে ষড়যন্ত্র হচ্ছে

66

 

চসিক নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেন ভোটের দিন নগরীতে সাধারণ ছুটি ঘোষণা না করায় প্রতিবাদ জানিয়ে বলেছেন, ভোটাররা যাতে ভোট কেন্দ্রে যেতে না পারে এবং ভোটার উপস্থিতি বেশি না হতে পারে, সে জন্য পরিকল্পিতভাবে সরকারি ছুটি দেয়া হয়নি।
তিনি গতকাল রবিবার বিকেলে উত্তর পতেঙ্গা, দেওয়ান বাজার, বক্সিরহাট ওয়ার্ডে ধানের শীষে ভোট চেয়ে গণসংযোগকালে এ অভিযোগ করেন।
তিনি নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে উত্তর পতেঙ্গা ওয়ার্ডের চড়ি হালদার মোড় থেকে গণ সংযোগ শুরু করেন।তিনি বলেন, চট্টগ্রাম শিল্প ও ব্যবসাবান্ধব নগরী, এখানে হাজার হাজার কলকারখানায় লাখ লাখ শ্রমিক কাজ করছে। ভোটের দিন ভোটাররা তাদের কর্মস্থলে না গিয়ে ভোট কেন্দ্রে কীভাবে যাবে? এতে ভোটার উপস্থিতি কমে যাবে। এ সুযোগে সরকারি দল তাদের প্রার্থীকে বিজয়ী করতে নগরীতে বহিরাগত সন্ত্রাসীদের দিয়ে কেন্দ্র দখলের চেষ্টা চালাবে।
তিনি বলেন, আমরা শুনতে পাচ্ছি, নগরীর বিভিন্ন আবাসিক হোটেল, রেস্ট হাউজগুলোতে চট্টগ্রামের আশপাশের এলাকার বহিরাগতরা অবস্থান করছে। এমনিতে বর্তমান সরকার ও নির্বাচন কমিশনের অধিনে যে কোন নির্বাচনে ভোটারদের আস্থা নেই। ভোটার উপস্থিতি বাড়ানোর জন্য সাধারণ ছুটি ঘোষণাসহ আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখা প্রয়োজন।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় বিএনপির শ্রম বিষয়ক সম্পাদক এএম নাজিম উদ্দিন, নগর বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক মো. মিয়া ভোলা, ইয়াছিন চৌধুরী লিটন, আব্দুল মান্নান, সদস্য হাজী মো. আলী, নগর যুবদলের সভাপতি মোশাররফ হোসেন দিপ্তী, গাজী সিরাজ উল্লাহ, বক্সির হাট ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রাথী এ্যাড. তারিক আহমেদ, বিএনপি নেতা এম এ হাসেম রাজু, জসিম উদ্দিন মিন্টু, একে এম পিয়ারু, মাইন উদ্দিন মো শহীদ, মুজিবুল হক, মুজিবুর রহমান চেয়ারম্যান, মো. রফিক, নুর আহমদ পিন্টু, জাকির হোসেন, মো. শাহাবউদ্দীন, বেলায়েত হোেেসন বুলু, ইকবাল হোসেন, কাউন্সিলর প্রার্থী মো. হারুন, খন্দকার নুরুল ইসলাম, এসএম মফিজ উল্লাহ, মো. ইলিয়াছ, মঞ্জুরুল কাদের, সাব্বির আহমদ, সৈয়দ আবুল বশর, নুর হোসেন নুরু, কাউন্সিলর প্রার্থী লিয়াকত আলী, মহিলা কাউন্সির প্রার্থী এ্যাড. পারভীন আক্তার চৌধুরী, মনোয়ারা বেগম, নুরুল হক, জিয়াউর রহমান, আলী মর্তুজা খান, ফরিদ উদ্দিন, আবু জাফর, সাবের কোম্পানী, সাইফুল ইসলাম সেলিম, আব্দুল হাকিম, মো. সেলিম, রেজাউল করিম, ইলিয়াছ সর্দার, হাফিজুল ইসলাম মিলন, মো. জামাল, আবুল কালাম, এন মো. রিমন, খুরশিদ আলম, জাহেদ ইউসূফ, আলমগীর হোসেন জুয়েল। বিজ্ঞপ্তি