চেন্নাই সিটিকে হারিয়ে সেমিতে গোকুলাম কেরালা

22

টানা দুই ম্যাচ হেরে শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপ থেকে আগেই ছিটকে গিয়েছিল চেন্নাই সিটি এফসি। কিন্তু গতকাল ‘বি’ গ্রæপের শেষ ম্যাচেও ০-২ গোলে হেরে তিন খেলায় পয়েন্ট ছাড়াই টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিল আই লিগ চ্যাম্পিয়নরা।
অন্যদিকে শেষ চারের আশা বাঁচিয়ে রাখতে হলে ড্র হলেই চলতো শ্রী গোকুলাম কেরালার। আগের দুই ম্যাচে এক জয় ও এক ড্র নিয়ে সেমিফাইনালের পথে এক পা দিয়ে রেখেছিল কোচ সত্য সাগরাকানাপাতির শিষ্যরা। গতকাল গ্রæপ পর্বের শেষ ম্যাচে দুর্দান্ত জয়ে ৭ পয়েন্ট তুলে নিয়ে সেমিতে উঠেছে কেরালা।
শনিবার টুর্নামেন্টের একমাত্র ভেন্যু চট্টগ্রামের এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হয় ভারতের দুই ক্লাব ডুরান্ড কাপ চ্যাম্পিয়ন গোকুলাম কেরালা এবং আই লিগ চ্যাম্পিয়ন চেন্নাই সিটি। ম্যাচের শুরু থেকে আধিপত্য ধরে রেখে ২-০ ব্যবধানের জয় তুলে নিয়েছে কেরালা।
ম্যাচের শুরু থেকে আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলতে থাকা কেরালা এগিয়ে যেতে পারতো ষষ্ঠ মিনিটে। অবশ্য তার এক মিনিট আগে প্রতিপক্ষের গোলপোস্টে জোরালো শট নিয়েছিলেন চেন্নাইয়ের মিডফিল্ডার চার্লস। কেরালাকে বাঁচান তাদের গোলরক্ষক ওবাইও চোনো। অবশ্য গোলের জন্য বেশিক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়নি কেরালাকে। ৮ মিনিটে ফ্রি-কিক নেন আন্দ্রে ডেনিস। চেন্নাইয়ে ডি-বক্সের ভেতর বল পান হেনরি কিসেক্কা। তিনি চেষ্টা করেছিলেন গোলের। তবে সেই বল গিয়ে পৌঁছে লাল রোমাইয়ার পায়ে। কেরালা ফরোয়ার্ড দুর্দান্ত শটে পরাস্ত করেন চেন্নাই গোলরক্ষক গার্সিয়া সান্তানাকে।
১২ মিনিটে মুহম্মদ রশিদের ক্রস থেকে কেরালার ব্যবধান দ্বিগুণ করে দেন হেনরি কিসেক্কা। টুর্নামেন্টে এই নিয়ে তৃতীয় গোলের দেখা পেলেন এই উগান্ডা স্ট্রাইকার। এর আগে বসুন্ধরা কিংসের বিপক্ষে জোড়া গোল করেছিলেন তিনি।
বিরতিতে যাওয়ার আগে সমতায় ফিরতে জোরালো আক্রমণ শাণায় চেন্নাই। ৪১ মিনিটে শট নিয়েছিলেন তাদের অধিনায়ক পেদ্রো হাভিয়ের। কিন্তু পরাস্ত করতে পারেননি গোলরক্ষক চোনোকে। ৪৪ মিনিটে দ্বিতীয় গোলের সুযোগ নষ্ট করেন কিসেক্কা। এর পরের মিনিটে কেরালার আক্রমণ রুখে দেয় চেন্নাইয়ের রক্ষণভাগ।
দ্বিতীয়ার্ধেও গোলের চেষ্টা অব্যাহত রাখে দু’দল। ৫৮ মিনিটে সহজ সুযোগ চেন্নাই। ম্যাচের শেষদিকে অবশ্য আক্রমণের ধার শ্লথ করে ফেলে দু’দল। শেষ পর্যন্ত তিন পয়েন্ট আদায় করে সেমিতে যাওয়ার আনন্দে মাঠ ছাড়ে কেরালা। চেন্নাই টানা তিন ম্যাচে হেরে শূন্য পয়েন্ট নিয়ে ফিরছে ঘরে।
খেলা শেষে বিজয়ী দলের খেলোয়াড়ের হাতে ম্যাচসেরা পুরস্কার তুলে দেন ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফজলুল্লাহ। এসময় উপস্থিত ছিলেন টুর্নামেন্ট কমিটির সমন্বয়কারী সৈয়দ শাহাবুদ্দীন শামীম, সিজেকেএস নির্বাহী সদস্য জিএম হাসান, রেজিয়া বেগম ছবি ও তানভীর চৌধুরী।