চুক্তি হলে চার দেশের সঙ্গেই হবে : কাতার

15

উপসাগরীয় চার দেশের সঙ্গে প্রায় তিন বছর ধরে চলা কূটনৈতিক বিরোধ নিরসনের চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছে কাতার। তবে ঠিক কবে নাগাদ এই সমস্যার সমাধান হচ্ছে এই বিষয়ে তেমন কিছুই জানায়নি দেশটি। খবর আল জাজিরার। শুক্রবার দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ বিন আবদুল রহমান আল থানি বলেন, ‘এই মুহূর্তে বিষয়টি নিয়ে কিছুটা আলাপ-আলোচনা হচ্ছে। আশা করি খুব দ্রুত কিছু একটা হবে।’
সমাধানের সময় নিদিষ্ট করে না বললেও আল থানি বলেছেন, ‘কোনো একটি নিদিষ্ট দেশের সঙ্গে চুক্তি হবে না। চুক্তি হলে চার দেশের সঙ্গেই হবে।’ বিরোধ মীমাংসাকে আঞ্চলিক নিরাপত্তা ও জনগণের ভাগ্যের জন্য গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে আখ্যায়িত করে কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘পারস্পারিক শ্রদ্ধা এবং উপসাগরীয় অঞ্চলের সব মানুষের অধিকারের ভিত্তিতে এই সংকটের অবসান হওয়া উচিত।’ সন্ত্রাসবাদের মদদদাতা ও অর্থায়নকারী হিসেবে উল্লেখ করে গেল ২০১৭ সালের জুনে কাতারের সঙ্গে সব ধরনের সম্পর্ক ছিন্ন করে সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহরাইন ও মিসর। নতুন করে কাতারের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে জুড়ে দেয়া হয় ১৩টি শর্ত। যার মধ্যে অন্যতম হলো কাতারভিত্তিক আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম আলজাজিরার সম্প্রচার বন্ধ ঘোষণা করা। তবে প্রতিবেশী দেশগুলোর অভিযোগ বরাবর অস্বীকার করে শর্ত মানতে অস্বীকৃতি জানিয়ে আসছে কাতার।