চিনি-পাম তেলের দাম বেঁধে দিল সরকার

15

পূর্বদেশ ডেস্ক

চিনি ও পাম অয়েলের দাম কমিয়ে সর্বোচ্চ খুচরা মূল্য নির্ধারণ করে দিয়েছে সরকার। আগামী ২৫ সেপ্টেম্বর থেকে নতুন এই মূল্য কার্যকর হবে। গতকাল বৃহস্পতিবার বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব খন্দকার নূরুল হক সই করা এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।
এর আগে পাম অয়েলের দাম ১৪৫ টাকা লিটার ছিল। বর্তমানে ১২ টাকা কমিয়ে সর্বোচ্চ খুচরা মূল্য করা হয়েছে ১৩৩ টাকা। এই তেলের মিলগেটের দাম ১২৮ টাকা ও পরিবেশক মূল্য ১৩০ টাকা করা হয়েছে।
অন্যদিকে চিনির দাম গত বছরের ৯ সেপ্টেম্বর নির্ধারণ করে দেয় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। খোলা বাজারে প্রতিকেজি চিনি বিক্রি হচ্ছে ৯০-৯৫ টাকায়। নতুন নির্ধারিত দাম অনুযায়ী খোলা চিনির সর্বোচ্চ খুচরা মূল্য ৮৪ টাকা ও প্যাকেটজাত চিনির সর্বোচ্চ খুচরা মূল্য ৮৯ টাকা হবে। খবর বাংলা ট্রিবিউন।
প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী, পাম সুপার খোলা তেল প্রতি লিটার সর্বোচ্চ খুচরা মূল্য ১৩৩ টাকা, প্রতি কেজি পরিশোধিত খোলা চিনি ৮৪ টাকা ও পরিশোধিত প্যাকেটজাত খোলা চিনির দাম ৮৯ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। ২৫ সেপ্টেম্বর এই মূল্য কার্যকর হবে।
বাংলাদেশ ট্রেড অ্যান্ড ট্যারিফ কমিশনের সুপারিশ অনুযায়ী এই দাম নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে বলে প্রজ্ঞাপনে জানানো হয়েছে। সর্বোচ্চ খুচরা মূল্যের পাশাপাশি এসব পণ্যের মিলগেটের মূল্য ও পরিবেশক মূল্যও নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে।
এর আগে গত ৩০ আগস্ট বাণিজ্য মন্ত্রণালয় জানায়, চাল, আটা, ময়দা, ভোজ্যতেল, চিনি, মসুর ডাল, সিমেন্ট, রডসহ মোট ৯ পণ্যের দাম নির্ধারণ করে দেবে সরকার। এসব পণ্যের যৌক্তিক দাম কত হওয়া উচিত, তা ঠিক করা হবে পরবর্তী ১৫ দিনের মধ্যে।
সম্প্রতি ট্যারিফ কমিশন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে একটি প্রতিবেদন পাঠায়। এর আলোকে মন্ত্রণালয় এই দাম নির্ধারণ করেছে।