চবি ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের উদ্যোগ

12

চবি প্রতিনিধি

পূর্ণাঙ্গ কমিটি করার দাবিতে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) শাখা ছাত্রলীগ। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের জিরো পয়েন্ট এলাকায় মূল ফটকে শতাধিক নেতাকর্মী জড়ো হয়ে এই দাবি জানান। এ সময় তারা নানা দাবি সম্বলিত প্লে-কার্ডও প্রদর্শন করেন। আন্দোলনের একপর্যায়ে কেন্দ্রীয় ও শাখা ছাত্রলীগের নেতারা ঘটনাস্থলে আসেন এবং ২৫ জানুয়ারির মধ্যে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের বিষয়ে একটা সিদ্ধান্ত প্রদানের আশ্বাস দেন। এতে আন্দোলন স্থগিত করে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা।
জানা গেছে, বৃহস্পতিবার দুপুরে চবিতে ছাত্রলীগের কার্যক্রম পরিদর্শনে আসেন কেন্দ্রীয় কমিটির প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক হায়দার মোহাম্মদ জিতু এবং উপ-সাংস্কৃতিক সম্পাদক শেখ নাজমুল। আর এই বিষয়কে কেন্দ্র করে গত বুধবার ছাত্রলীগের এক কর্মীকে মারধর করার ঘটনা ঘটে। মারধরে আহত বিশ্বজিৎ বৌদ্ধনীল সংস্কৃত বিভাগের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র। তিনি ‘সিক্সটি নাইন’ গ্রুপ নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীন অনুসারী হিসেবে পরিচিত। অভিযুক্ত কর্মীরা ‘বিজয়’ গ্রুপ শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের অনুসারী হিসেবে ক্যাম্পাসে পরিচিত।
এই ঘটনায় আহত বিশ্বজিৎ বৌদ্ধনীল বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। লিখিত অভিযোগে বলা হয়, এক ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীকে দিকনির্দেশনা দেওয়ার সময় অকারণে ইতিহাস বিভাগের ২০১৬-১৭ সেশনের শিক্ষার্থী ফয়সাল মাহমুদ, ম্যানেজমেন্ট বিভাগের ১৫-১৬ সেশনের মো. রিফাত, আইইআর ১৬-১৭ সেশনের মিনহাজ, ইংরেজি বিভাগের ১৬-১৭ সেশনের মো. বেলাল, একই সেশনের জিবুসহ অজ্ঞাত পরিচয়ের আরও পাঁচজন তাকে এলোপাথাড়ি মারধর করেন।
মারধরকে কেন্দ্র করে বুধবার ক্যাম্পাসে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপ মুখোমুখি অবস্থান নেন। তবে একপর্যায়ে পুলিশ ও প্রশাসনের হস্তক্ষেপে উভয় গ্রুপ পিছু হটে। এরপর বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় নেতারা ক্যাম্পাসে এলে ছাত্রলীগের কয়েকটি গ্রুপের নেতাকর্মীরা জিরো পয়েন্ট এলাকায় অবস্থান নেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আন্দোলনরত ছাত্রলীগের এক কর্মী বলেন, দীর্ঘদিন ধরে দুই সদস্যেই চলছে চবি ছাত্রলীগের কমিটি। আমরা কমিটি পূর্ণাঙ্গের দাবিতে অবস্থান কর্মসূচিতে বসেছি। আমরা চাই পড়াশোনা শেষ করার আগে ছাত্রলীগের একটি পরিচয় পেতে।
পরে কেন্দ্রীয় নেতারা আন্দোলনরত নেতাকর্মীদের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের আশ্বাস দিলে আন্দোলন স্থগিত করা হয়। এ বিষয়ে শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল হক রুবেল বলেন, কেন্দ্রীয় নেতারা আশ্বাস দিয়েছেন, আগামী ২৫ জানুয়ারির মধ্যে কমিটির বিষয়ে একটা সিদ্ধান্ত হবে। সব কিছু ঠিকঠাক হলে শিগগিরই কমিটি পূর্ণাঙ্গ হবে।