চন্দ্রযানের সফল অবতরণ, ইতিহাস গড়ল ভারত

31

পূর্বদেশ অনলাইন
ভারতের চন্দ্রযান-৩ সফলভাবে চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে অবতরণ করেছে। এর মাধ্যমে ভারত নতুন এক মাইলফলক স্পর্শ করল।যুক্তরাষ্ট্র, চীন ও সোভিয়েত ইউনিয়নের পর চতুর্থ দেশ হিসেবে চাঁদের মাটি স্পর্শ করল ভারতের মহাকাশযান। বুধবার (২৩ আগস্ট) স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬টার পরপরই চন্দ্রযান-৩ চাঁদের মাটিতে অবতরণ করে। দক্ষিণ আফ্রিকায় ব্রিকস সম্মেলনে অংশ নেওয়া ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ভার্চ্যুয়ালি এই অবতরণ পর্যবেক্ষণ করেন। ভারতীয় মহাকাশ সংস্থা এক্সে (আগের নাম টুইটার) পোস্ট করে বলেছে, ভারত, আমি গন্তব্যে পৌঁছে গেছি, সঙ্গে তুমিও: চন্দ্রযান-৩। চন্দ্রযান-৩ সফলভাবে চাঁদে অবতরণ করেছে। অভিনন্দন ভারত। চার বছর আগের চন্দ্রযান-২ এর ব্যর্থতা থেকে যে হতাশার তৈরি হয়েছিল, তা এই অবতরণের মাধ্যমে শেষ হলো। চন্দ্রযান-৩ এর বিক্রম চাঁদের মাটি স্পর্শ করার সঙ্গে সঙ্গে বেঙ্গালুরুতে ইসরো সদরদপ্তর উপস্থিতদের তালির শব্দে ফেটে পড়ে। ১৫তম ব্রিকস সম্মেলনে অংশ নিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার জোহানেসবার্গ থেকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন, ভারত চাঁদে অবতরণ করল। এই সাফল্যের পরপরই তার মুখে ছিল হাসি। হাতে ছিল ভারতের পতাকা। তিনি পতাকা নেড়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন। ইসরো এর আগে জানিয়েছিল, চাঁদে চন্দ্রযান-৩ এর ল্যান্ডার অবতরণের পর পেট থেকে বেরিয়ে আসবে রোভার। এই রোভার আদতে চাঁদের মাটিতে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালাবে। ইসরোর পরিকল্পনা মতো চাঁদ থেকে বিভিন্ন তথ্য সংগ্রহ করবে। খনিজ সংক্রান্ত তথ্য, ভূমিকম্প সংক্রান্ত তথ্য পাঠাবে ইসরোকে, যা ভবিষ্যতের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। ১৪ জুলাই ভারতের স্থানীয় সময় দুপুর ২টা ৩৫ মিনিটে অন্ধ্র প্রদেশের শ্রীহরিকোটা উৎক্ষেপণকেন্দ্র থেকে চাঁদের উদ্দেশে যাত্রা শুরু করে ‘চন্দ্রযান-৩’। একটি এলভিএম-৩ রকেট দিয়ে চাঁদের উদ্দেশ্যে চন্দ্রযানটিকে উৎক্ষেপণ করা হয়। গেল রোববার রাশিয়ার চন্দ্রাভিযান ব্যর্থ হয়। মহাকাশযান লুনা-২৫ নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ভূপাতিত হয়।