চট্টলাবাসী নৌকার পক্ষেই রায় দিবে

9

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন বলেছেন, ‘চট্টগ্রামের মানুষ সবসময় মুক্তিযুদ্ধের পক্ষেই ছিল। মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবিজড়িত এই চট্টগ্রাম। জননেত্রী শেখ হাসিনা একজন বীর মুক্তিযোদ্ধাকেই দলীয় মনোনয়ন দিয়েছেন। তাই আমার বিশ্বাস চট্টলাবাসী নৌকার পক্ষেই রায় দিবেন।’ গতকাল আওয়ামী লীগের এই নেতা পূর্বদেশের এ প্রতিবেদকের সাথে আলোচনায় এমন আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনকে উপলক্ষ করে চট্টগ্রামে আসা কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি দলের এই শীর্ষ নেতা বলেন, নির্বাচনকে সুষ্ঠু ও উৎসবমুখর পরিবেশে সম্পন্ন করতে ইসি কিছু উদ্যোগ গ্রহণ করে। চট্টগ্রামেও অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার ও সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তারে নির্দেশনা দিয়েছে ইসি। চসিক নির্বাচনের দিকে শুধু বাংলাদেশ নয়, বাইরের দেশের জনগণও তাকিয়ে আছে। চসিক নির্বাচন যাতে শান্তিপূর্ণ, সংঘাতহীন ও রক্তপাতহীন হয় সেজন্য সবধরনের প্রস্তুতি নিয়েছে প্রশাসন।
তিনি বলেন, চট্টগ্রামে নির্বাচনে বিএনপি কোনো কাউন্সিলর প্রার্থী বলতে পারবে তাদের উপর হামলা হয়েছে। উল্টো আওয়ামী লীগ দলীয় ও বিদ্রোহী প্রার্থীদের মধ্যে মারামারি হয়েছে। একজন মারাও গেছে। সব রাজনৈতিক দল সমানভাবে প্রচারণা করেছে। বিএনপি সন্ত্রাসীদের দল। তারা এই চট্টগ্রামেই জামায়াত-শিবিরকে আশ্রয় দিয়েছে, এখনো দিচ্ছে। চট্টগ্রামেই বিএনপি জঙ্গীবাদকে পৃষ্ঠপোষকতা দিয়েছে। এরা সুযোগ পেলেই ভোটের সুন্দর পরিবেশকে অশান্ত করতে পারে।
আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, সাধারণ মানুষ যাতে নির্বিঘ্নে ভোটকেন্দ্রে যেতে পারে সেব্যবস্থা করতে হবে প্রশাসনকে। জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতীক নৌকা। চট্টগ্রামের মানুষের নৌকার প্রতি আস্থা আছে। গত ১২ বছরে চট্টগ্রামে যে উন্নয়ন হয়েছে এরকম উন্নয়ন কোথাও হয়নি। মিরসরাইয়ে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনৈতিক অঞ্চল করা হয়েছে। আনোয়ারাতেও অর্থনৈতিক অঞ্চল হয়েছে। টানেল, ফ্লাইওভার, হাইওয়ে নির্মিত হচ্ছে। চট্টগ্রাম বন্দরকে ঢেলে সাজানো হচ্ছে। যে কারণে চট্টগ্রামের মানুষ মনে করে নৌকায় ভোট দিলে চট্টগ্রামের উন্নয়নের গতি আরো বৃদ্ধি পাবে।