চট্টগ্রামে ৪২ জন পেলেন সেরা করদাতার সম্মাননা

16

নিজস্ব প্রতিবেদক

চট্টগ্রাম, রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি, বান্দরবান ও কক্সবাজারের সেরা ৪২ জন করদাতাকে সম্মাননা প্রদান করে চট্টগ্রাম আয়কর বিভাগ। গতকাল বুধবার দুপুরে আগ্রাবাদ ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের বঙ্গবন্ধু কনফারেন্স হলে এ সম্মাননা প্রদান করা হয়। আয়োজক কমিটির আহব্বায়ক ও কর অঞ্চল-১ এর কমিশনার সৈয়দ মোহাম্মদ আবু দাউদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন কর কমিশনার (অঞ্চল-৪) এমএম ফজলুল হক।
এতে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে চিটাগাং চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম বলেন, যারা কর দিয়ে দেশের উন্নয়নকে এগিয়ে নিচ্ছেন সামাজিকভাবে তাদের সম্মান দেওয়া হলে বড় স্বীকৃতি হবে। প্রধানমন্ত্রী ভিশন নিয়ে কাজ করছেন। এর জন্য ভ্যাট ট্যাক্স দিতে হবে। কিন্তু ব্যবসায়ীদের হয়রানি থেকে মুক্তি চাই। আমরা ভ্যাট দেব, ট্যাক্স দেব, হয়রানিমুক্ত ভ্যাট ট্যাক্স দেব। স্বেচ্ছায় দেশের উন্নয়নে ভ্যাট, ট্যাক্স দেব। প্রতিটি উপজেলায় কর অফিস চালুর জন্য প্রস্তাব দিয়ে চেম্বার সভাপতি বলেন, এ পদক্ষেপ নেওয়া হলে করদাতা বাড়বে। একই সাথে দেশ আরও এগিয়ে যাবে।
অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন কর কমিশনার একেএম হাসানুজ্জামান, কর আপিল কমিশনার মঞ্জু মান আরা বেগম, ভ্যাট কমিশনার মোহাম্মদ আকবর হোসেন, কর কমিশনার (অঞ্চল ৩) মো. মাহমুদুর রহমান, মেট্রোপলিটন চেম্বার সিএমসিসিআই পরিচালক জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, কর আইনজীবী সমিতির সভাপতি এনায়েত উল্লাহ প্রমুখ।
সেরা করদাতার মধ্যে বক্তব্য রাখেন নাদের খান বলেন, যারা কর দেন তাদের ওপর বার বার হামলা হয়। আমরা যদি ভীতিতে থাকি করের আওতা বাড়বে না। ভ্যাট নিয়ে অনেকের ভীতি আছে। কর কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ দিতে হবে। কর দিতে ইচ্ছে হবে যদি সঠিক উন্নয়ন অব্যাহত থাকে। যা উন্নয়ন হবে তা পরিচর্যাও করতে হবে। করদাতা ও প্রহীতা একই মাটির সন্তান, কেউ কারও প্রতিদ্বন্দ্বী নই।
এদিকে চট্টগ্রামের ৪টি কর অঞ্চলের অধীনে ২০২০-২০২১ করবর্ষে নগর ও জেলা, কক্সবাজার, রাঙামাটি, বান্দরবান ও খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার সেরা ৪২ জন করদাতা হলেন যারা- চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন কর অঞ্চল থেকে দীর্ঘ সময় ধরে কর প্রদানকারী মোহাম্মদ আলী মেহের ও সৈয়দ আবু মোহাম্মদ শাহজাহান, সর্বোচ্চ কর প্রদানকারী মোহাম্মদ কামাল, মোহাম্মদ নাদের খান ও মো. নাছির উদ্দিন, সর্বোচ্চ কর প্রদানকারী নারী করদাতা জেবুন নাহার ইসলাম। এ ছাড়া তরুণ পুরুষ (৪০ বছরের নিচে) সর্বোচ্চ কর প্রদানকারী আসিফ মাহমুদ। চট্টগ্রাম জেলা থেকে দীর্ঘ সময় ধরে কর প্রদানকারী করদাতা নির্বাচিত হয়েছেন বজল আহমদ ও মো. নুরুল ইসলাম। সর্বোচ্চ কর প্রদানকারী ইঞ্জিনিয়ার মো. মহসিন, দেলোয়ার হোসেন ও মো. মাইনুল হাসান। সর্বোচ্চ কর প্রদানকারী নারী করদাতা জান্নাতুল মাওয়া এবং তরুণ পুরুষ ক্যাটাগরিতে সর্বোচ্চ করদাতা মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন।
কক্সবাজারে দীর্ঘ সময় ধরে কর প্রদানকারী মোহাম্মদ ছিদ্দিক ও মুহাম্মদ আনোয়ারুল ইসলাম। সর্বোচ্চ করদাতা মোহাম্মদ আইয়ুব, ইঞ্জিনিয়ার মো. আলমগীর ও মুহাম্মদ আবু কাউসার। সর্বোচ্চ কর প্রদানকারী নারী করদাতা রেহেনা বেগম এবং ৪০ বছর বয়সের নিচে তরুণ পুরুষ করদাতা মো. জিয়াবুল।
রাঙামাটিতে দীর্ঘ সময় ধরে কর প্রদানকারী সুভাষ সাহা ও মো. লোকমান হাকিম (হীরা)। সর্বোচ্চ কর প্রদানকারী লোকমান হোসেন তালুকদার, মো. রফিকুল আলম লিটন ও সুলতান কামরুউদ্দিন। সর্বোচ্চ কর প্রদানকারী নারী গীতা দে এবং তরুণ পুরুষ ক্যাটাগরিতে সর্বোচ্চ করদাতা মো. সাখাওয়াত হোসেন সোহেল।
খাগড়াছড়িতে দীর্ঘ সময় ধরে কর প্রদানকারী মো. আবু তালেব ও রঞ্জিত কুমার পালিত। সর্বোচ্চ কর প্রদানকারী তিনজন হলেন এস অনন্ত বিকাশ ত্রিপুরা, মো. নুর আলম ও মোসাম্মৎ ফরিদা আক্তার। সর্বোচ্চ কর প্রদানকারী নারী করদাতা বিউটি দেব এবং তরুণ পুরুষ ক্যাটগরিতে মো. জাহাঙ্গীর আলম (বাদশা)।
বান্দরবানে দীর্ঘ সময় কর প্রদানকারী কাজল কান্তি দাশ ও মোহাম্মদ নুরুল আবছার। সর্বোচ্চ কর প্রদানকারী মোহাম্মদ আলী, মোহাম্মদ নুরুল আবছার ও রাজু বড়ুয়া। সর্বোচ্চ কর প্রদানকারী নারী করদাতা হলেন হুরে জান্নাত হুরাইন এবং তরুণ পুরুষ ক্যাটগরিতে সর্বোচ্চ করদাতা সায়েদ হোসেন মো. জুয়েল।