চট্টগ্রামে লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ৪৮৮১ জন

17

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক নিয়োগের প্রথম ধাপের লিখিত পরীক্ষায় ৪০ হাজার ৮৬২ জন প্রার্থী উত্তীর্ণ হয়েছেন। এর মধ্যে চট্টগ্রাম জেলা থেকে উত্তীর্ণ হয়েছেন ৪ হাজার ৮৮১ জন। উত্তীর্ণ প্রার্থীরা মৌখিক পরীক্ষার জন্য নির্বাচিত হয়েছেন। লিখিত পরীক্ষার নম্বর ও মৌখিক পরীক্ষার নম্বরের ভিত্তিতে ‘সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক নিয়োগ বিধিমালা’ অনুসারে এ নিয়োগের প্রার্থী চ‚ড়ান্ত করা হবে। গতকাল বৃহস্পতিবার প্রথম ধাপের এমসিকিউ পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়েছে। প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে জারি করা এক বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানানো হয়।
গত ২২ এপ্রিল প্রথম ধাপে ১৪টি জেলা সম্পূর্ণ এবং ৮ জেলার আংশিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এদিন ৩ লাখ ৯৬ হাজার ৭৬৪ জন প্রার্থী পরীক্ষায় অংশ নেন। এদের মধ্যে ৪০ হাজার ৮৬২ জন প্রার্থী উত্তীর্ণ হয়েছে বলে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর জানিয়েছে।
বিজ্ঞপ্তিতে অধিদপ্তর জানিয়েছে, এ ফল সাময়িক ফল হিসেবে গণ্য হবে। এ ফলের ভিত্তিতে নির্বাচিত প্রার্থীরা কেবল মৌখিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন। এ ফল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের রাজস্বখাতভুক্ত ‘সহকারী শিক্ষক নিয়োগ ২০২০’ এর কোন শূন্য পদে নিয়োগের জন্য কোন নিশ্চয়তা প্রদান করে না। প্রকাশিত ফলের যে কোন পর্যায়ে কোন প্রকার ভুল-ভ্রান্তি বা মুদ্রণজনিত ত্রুটি পরিলক্ষিত হলে তা সংশোধন করার বা প্রয়োজনবোধে সংশ্লিষ্ট ফল বাতিল করার এখতিয়ার কর্তৃপক্ষ সংরক্ষণ করে।
অধিদপ্তর আরও জানায়, কোন প্রার্থী ইচ্ছাকৃতভাবে কোন ভুল তথ্য দিলে কিংবা কোন তথ্য গোপন করেছেন বলে প্রমাণিত হলে কর্তৃপক্ষ তার ফল বা নির্বাচন বাতিল করতে পারবে। প্রার্থীদের লিখিত পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বর ও মৌখিক পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে ‘সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক নিয়োগ বিধিমালা, ২০১৯ অনুসরণপূর্বক নিয়োগের জন্য চূড়ান্তভাবে প্রার্থী নির্বাচন করা হবে। মৌখিক পরীক্ষার স্থান, তারিখ ও সময় পরবর্তীতে যথাসময়ে প্রার্থীদের জানানো হবে।
গত ২২ এপ্রিল চাঁপাইনবাগঞ্জ, মাগুরা, শেরপুর, গাজীপুর, নরসসিংদী, মানিকগঞ্জ, ঢাকা, মাদারীপুর, মুন্সিগঞ্জ, ল²ীপুর, ফেনী, চট্টগ্রাম, মৌলভীবাজার, লালমনিরহাট জেলার সব উপজেলার লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়াও সিরাজগঞ্জ জেলার উল্লাপাড়া, বেলকুচি, চৌহালী, কামারখন্দ, কাজীপুর; যশোর জেলার ঝিকরগাছা, কেশবপুর, মনিরামপুর, শার্শা; ময়মনসিংহ জেলার ভালুকা, ধোবাউড়া, ফুলবাড়িয়া, গফরগাঁও, গৌরীপুর, হালুয়াঘাট, ঈশ্বরগঞ্জ; নেত্রকোনা জেলার আটপাড়া, বারহাট্টা, দুর্গাপুর, কমলকান্দা, কেন্দুয়া; কিশোরগঞ্জ জেলার অষ্টগ্রাম, বাজিতপুর, ভৈরব, হোসেনপুর, ইটনা, করিমগঞ্জ, কটিয়াদি; টাঙ্গাইল জেলার সদর, ভ‚য়াপুর, দেলদুয়ার, ধনবাড়ি, ঘাটাইল, গোপালপুর; কুমিল্লা জেলার বরুয়া, ব্রাক্ষণপাড়া, বুড়িচং, চান্দিনা, চৌদ্দগ্রাম, সদর, মেঘনা, দাউদকান্দি এবং নোয়াখালি জেলার কবিরহাট, সদর, সেনবাগ, সোনাইমুড়ি, সুবর্ণচর উপজেলার প্রার্থীদের পরীক্ষা নেয়া হয়।