গ্যাসের চাহিদা পূরণে বাড়ানো হচ্ছে উৎপাদন

11

 

দেশে গ্যাসের চাহিদা পূরণে সরকার দীর্ঘমেয়াদি চুক্তির বাইরে স্পট মার্কেট (খোলাবাজার) থেকে তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস (এলএনজি) আমদানি করছিল। গত মে মাসে স্পট মার্কেটে প্রতি মিলিয়ন ব্রিটিশ থার্মাল ইউনিট (এমএমবিটিইউ) এলএনজির দাম ছিল ২১ ডলার, সেটি এখন বেড়ে হয়েছে ৫৪ ডলার। দাম অস্বাভাবিক বেড়ে যাওয়ায় গত জুলাই মাস থেকে স্পট মার্কেটের এলএনজি কেনা বন্ধ রেখেছে সরকার। এতে জাতীয় গ্রিডে দৈনিক গ্যাস সরবরাহ কমেছে প্রায় ২০০ মিলিয়ন ঘনফুট। এই ঘাটতি মেটানোর জন্য জরুরি ভিত্তিতে দেশিয় ক‚পগুলো থেকে গ্যাসের উৎপাদন বাড়াতে কাজ করছে বাংলাদেশ তেল, গ্যাস ও খনিজ সম্পদ করপোরেশন (পেট্রোবাংলা)। এরই মধ্যে দেশিয় ক‚পগুলো থেকে প্রায় ৫০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাসের উৎপাদন বাড়ানো হয়েছে। বেশ কয়েকটি ক‚পের সংস্কারকাজ (ওয়ার্কওভার) চলমান। আগামী বছর পর্যন্ত আরো ১৪টি গ্যাসক‚প ওয়ার্কওভার, অনুসন্ধান ও উন্নয়ন করা হবে। যার মাধ্যমে দৈনিক আরো প্রায় ২০০ মিলিয়ন ঘনফুট পর্যন্ত গ্যাস উৎপাদন বাড়তে পারে। সে ক্ষেত্রে স্থানীয় উৎস থেকেই পূরণ হতে যাচ্ছে স্পট মার্কেট এলএনজির চাহিদা।