গৃহহীন পরিবারের মাঝে জমির দলিল ও ঘরের চাবি হস্তান্তর

25

 

রাউজান : রেলপথ মন্ত্রণালয় বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি বলেন, এক সঙ্গে এত বিপুল সংখ্যক মানুষকে বিনামূল্যে ঘর ও জমি প্রদান করে অন্যন্য নজির সৃষ্টির করলো বাংলাদেশ। গত ২০ জুন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের বিভিন্ন স্থানের ন্যায় রাউজানেও ৪৮৮টি গৃহহীন পরিবারের ঘর ভিডিও কনফারেন্সে উদ্বোধন শেষে উপজেলা হল রুমে মতবিনিময় সভা ও হস্তান্তর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, কোন দেশের প্রধানমন্ত্রী এক সাথে জমিসহ গৃহ নির্মাণের ঘটনা বিশ্বে বিরল। যার কারণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মানবতার নেত্রী হিসেবে বিশ্বে এখন সমাদৃত। এতে সভাপতিত্ব করেন রাউজান উপজেলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. জোনায়েদ কবীর সোহাগ। রাউজান উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা নিয়াজ মোরশেদ ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা লিক্সন চৌধুরীর পরিচালনায় এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন রাউজান উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এহেসানুল হায়দর চৌধুরী বাবুল, রাউজান পৌরসভার মেয়র জমির উদ্দিন পারভেজ, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মদ, সহকারি কমিশনার অতীশ দর্শী চাকমা, রাউজান থানার ওসি মো. আবদুল্লাহ আল হারুন ও পৌর প্যানেল মেয়র বশির উদ্দিন খান। এসময় উপস্থিত ছিলেন আনোয়ারুল ইসলাম, পৌর প্যানেল মেয়র এড. সমীর দাশগুপ্ত, ৩য় প্যানেল মেয়র নাছিমা আকতার, পৌর কাউন্সিলর জানে আলম জনি, আজাদ হোসেন, শওকত হোসেন, ইউপি চেয়ারম্যান আবদুর রহমান চৌধুরী, মুক্তিযোদ্ধা শফিকুল ইসলাম, লায়ন সরোয়ার্দী সিকদার, মুক্তিযোদ্ধা আব্বাস উদ্দিন আহমেদ, সাহাবুদ্দিন আরিফ, সৈয়দ আবদুল জব্বার সোহেল, বিএম জসিম উদ্দিন হিরু, প্রিয়তোষ চৌধুরী, রোকন উদ্দিন, তসলিম উদ্দিন চৌধুরী, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান বাবুল মিয়া, নজরুল ইসলাম চৌধুরী, জসিম উদ্দিন, সাবেক চেয়ারম্যান শাহ আলম চৌধুরী, স্বপন দাশগুপ্ত, নুরুল আমিন।
পেকুয়া : মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক ১ম পর্যায়ের ২য় ধাপে ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ প্রদান কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনী প্রকল্পের অংশ হিসেবে পেকুয়া যথাযথভাবে সম্পন্ন হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর আশ্রায়ণ-২ প্রকল্পে সারাদেশে ন্যায় পেকুয়ায় গত ২০ জুন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মেতাচ্ছেম বিল্লাহর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। গত ২০ জুন প্রকল্পটি গণবভন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উদ্বোধন শেষে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে পেকুয়ায় দ্বিতীয় ধাপে ৯টি পরিবারসহ মোট ৬০টি গৃহহীন ও ভূমিহীন পরিবারের মাঝে বিনামূল্যে বাড়ি হস্তান্তর করা হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পেকুয়া-চকরিয়ার সাংসদ জাফর আলম। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মো. জাহাঙ্গীর আলম, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মীকি মারমা, পেকুয়া থানার ওসি সাইফুর রহমান মজুমদার, ভাইস চেয়ারম্যান আজিজুল হক, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান উম্মে কুলছুম, জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা বীর মুক্তিযোদ্ধা এড. কামাল হোসেন, মুক্তিযোদ্ধা মো. ছাবের, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য গিয়াস উদ্দিন, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. ছাবের আহমদ, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আমিনুল ইসলাম, প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. সালামত উল্লাহ, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা তপন কান্তি পাল, উপজেলা জনস্বাস্থ্য কর্মকর্তা প্রকাশ চাকমা, উপজেলা কমিউনিটি পুলিশিং কমিটির সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল করিম চৌধুরী, উজানটিয়া ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম চৌধুরী, মগনামা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শরাফত উল্লাহ চৌধুরী ওয়াসিম, রাজাখালী ইউপি চেয়ারম্যান মো. ছৈয়দ নুর, টইটং ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান সাহাব উদ্দিন ও পেকুয়া সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রতিনিধি মো. ইসমাইল সিকদার প্রমুখ।
রামগড় : মুজিববর্ষ উপলক্ষে সারা দেশের ন্যায় খাগড়াছড়ি জেলার রামগড় উপজেলায় প্রধানমন্ত্রীর উপহার আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় ভূমিহীন ও গৃহহীন ৯১ জন পরিবারের মাঝে আনুষ্ঠানিকভাবে জমির দলিল ও ঘরে চাবি হস্তান্তর করা হয়েছে। গত ২০ জুন সকাল সাড়ে ১০টায় সারা দেশের ন্যায় খাগড়াছড়ির রামগড় উপজেলা মিলনায়তনে প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কন্ফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর উপহার আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় উপকারভোগীদের মাঝে নবনির্মিত ঘরের দলিল ও চাবি হস্তান্তরের মধ্যদিয়ে উদ্বোধন করা হয়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহমুদ উল্লাহ মারুফের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে জমির দলিল ও ঘরের চাবি হস্তান্তর করেন খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মংসুইপ্রু চৌধুরী অপু। প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, মুজিববর্ষে বাংলাদেশের একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না প্রধানমন্ত্রীর এ নির্দেশনা বাস্তবায়নে দেশের সব ভূমিহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ প্রদান কার্যক্রম চলমান রয়েছে। বিশেষ অতিথি ছিলেন অফিসার ইনচার্জ সামসুজ্জামান, বীর মুক্তিযোদ্ধা মফিজুর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মোস্তফা হোসেন, রামগড় ১নং ইউপি চেয়ারম্যান শাহ আলম মজুমদার, পাতাছড়া ২নং ইউপি চেয়ারম্যান মনিন্দ্র ত্রিপুরা, উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক নরুল আলম আলমগীর প্রমুখ। এসময় উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার উম্রাচিং চৌধুরীর সঞ্চালনায় এতে স্বাগত বক্তব্যে রাখেন প্রকল্পের সদস্য সচিব ওপিআইও মনসুর আলী।
মানিকছড়ি : স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও মুজিবর্ষে সারা দেশে ভূমি ও গৃহহীন পরিবারে প্রধানমন্ত্রীর উপহার আশ্রয়ণ প্রকল্প-২এর আওতায় ২য় পর্যায়ে আজ ৫৩ হাজার ৩শ ৪০ পরিবারের হাতে ঘরের চাবি ও দলিল হস্তান্তর কার্যক্রম উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আর এই কার্যক্রমে মানিকছড়ির আরো ২৭৩ পরিবারের মাঝে ঘরের চাবি ও দলিলপত্র হস্তান্তর করেছেন উপজেলা প্রশাসন। এ নিয়ে ১ম ও ২য় পর্যায়ে উপজেলার মোট ৬শ ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার মাথা গোঁজার ঠাঁই পেয়েছেন নান্দনিক ডিজাইনের ঘরে। সূত্রে জানা যায়, স্বাধীনতা সূবর্ণজয়ন্তী ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র উপহার’ আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর অধীনে সারাদেশে ভূমি ও গৃহহীন পরিবার পাচ্ছে নান্দনিক ডিজাইন ও রঙ্গিন ঢেউটিনের ছাউনিতে গড়া সেমিপাকা ঘর। পার্বত্য খাগড়াছড়ির মানিকছড়ি উপজেলায় অনাদর, অবহেলায় ও সুবিধাবঞ্চিত এসব জনগোষ্টির মাঝে প্রধানমন্ত্রীর উপহার তুলে দিতে তৃণমূলে কাজ করেছেন জনপ্রতিনিধি ও উপজেলা প্রশাসন। ফলে প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর অধীনে ১ম ও ২য় পর্যায়ে এখানকার ৬শত দরিদ্র পরিবার খুঁজে পেয়েছেন নতুন ঠিকানা শান্তির নীড়। সুবিধাভোগী ৬শ পরিবারের মধ্যে ১ম পর্যায়ে ৫৫টি এবং ২০ জুন ২৭৩টি ভূমিহীন ও গৃহহীন (ক শ্রেণির পরিবার পূনর্বাসনে নির্মিত) পরিবারকে নতুন ঘরের চাবি ও দলিলপত্র হস্তান্তর করা হয়েছে। অবশিষ্ট ২৭২টি গৃহ আগামী এক মাসের মধ্যে সুবিধাভোগীর মাঝে হস্তান্তর করার প্রক্রিয়া চলছে। গত ২০ জুন সকাল সাড়ে ৯টায় উপজেলা টাউন হলে ২য় পর্যায়ে প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক সারা দেশে ৫৩ হাজার ৩শ ৪০টি ভূমিহীন ওগৃহহীন পরিবারের কাছে ঘরের চাবি ও দলিলপত্র হস্তান্তর অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে সরাসরি উদ্বোধন কার্যক্রমে অংশগ্রহন করে তা উদ্বোধন করেন। আর মানিকছড়িতে এই কার্যক্রমে সুবিধাভোগীদের নিয়ে টাউন হলে অনুষ্ঠিত ঘরের চাবি ও দলিল হস্তান্তর অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তামান্না মাহমুদ। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান মো. জয়নাল আবেদীন। ১নং ইউপি চেয়ারম্যান মো. শফিকুর রহমান সঞ্চালিত অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. কামাল উদ্দীন। অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (জেনারেল) মো. হাবিবুল্লাহ। বিশেষ অতিথি ছিলেন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান এমএ রাজ্জাক, ভাইস চেয়ারম্যান মো. তাজুল ইসলাম বাবুল, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. শাহনূর আলম, ২নং বাটনাতলী ইউপি চেয়ারম্যান মো. শহীদুল ইসলাম মোহন, উপজেলা প্রকৌশলী (এলজিইডি) মো. আবদুল খালেক, প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা. সুচয়ন চৌধুরী। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সারা দেশে এ ২য় পর্যায়ে নির্মিত ঘরের চাবি ও দলিলপত্র হস্তান্তর কার্যক্রম উদ্বোধন শেষে মানিকছড়িতেও উক্ত কার্যক্রমের অংশ হিসেবে উপস্থিত অতিথিরা সুবিধাভোগীদের হাতে ঘরের চাবি ও দলিল হস্তান্তর করেন।