গণপরিবহন উধাও হয়ে যাবে না তো?

20

নিজস্ব প্রতিবেদক

নগরীর ট্রাফিক ব্যবস্থায় শৃঙ্খলা ফেরাতে বিভিন্ন রুটে চলাচলরত গণপরিবহনের জরিপে নামছে পুলিশের ট্রাফিক বিভাগ। এই জরিপ কার্যক্রমে বাস-মিনিবাসের রুট পারমিট ও ফিটনেস হালনাগাদ রয়েছে কিনা সেটা পরখ করে দেখা হবে। এছাড়া জরিপের মধ্য দিয়ে বিভিন্ন রুটে কি পরিমাণ ফিটনেসবিহীন গণপরিবহন চলাচল করছে তার একটি ডাটা তৈরিরও পরিকল্পনা রয়েছে। তবে জরিপ কার্যক্রম চলাকালে অতীতের মত রাজপথ থেকে গণপরিবহন উধাও হয়ে যাবে কিনা সেই প্রশ্নই এখন সবচেয়ে বেশি আলোচিত হচ্ছে।
পরিবহন সংশ্লিষ্টরা বলছেন, নগর পুলিশের ট্রাফিক বিভাগ এর আগেও কয়েক দফায় জরিপ কার্যক্রম হাতে নিয়েছিল। তবে জরিপ কার্যক্রমে অভিজ্ঞতা কখনওই সুখকর ছিল না। সর্বশেষ ২০১৭ সালের আগস্টে রুট পারমিট ও ফিটনেস পরখ করে দেখার লক্ষ্যে নগরীর জমিয়তুল ফালাহ জামে মসজিদ মাঠে কয়েকদিন ধরে জরিপ কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়েছিল। কিন্তু জরিপে হাজির হয়েছে খুবই কম সংখ্যক বাস-মিনিবাস ও হিউম্যান হলার। জরিপ চলাকালে গণপরিবহনের বেশিরভাগই রাজপথ থেকে উধাও হয়ে যায়। এতে নগরজুড়ে গণপরিবহনের কৃত্রিম সঙ্কটও তৈরি হয়। নিরাশ হতে হয়েছিল ট্রাফিক বিভাগকে। এ কারণে এবারও ওই ধরনের পরিস্থিতির মুখে পড়তে হয় কিনা সেই প্রশ্নই ঘুরপাক খাচ্ছে।
নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার ও জনসংযোগ কর্মকর্তা শাহাদাত হুসেন রাসেল জানান, আগামী ১০ আগস্ট থেকে নগরীতে বাস-মিনিবাসের জরিপ কার্যক্রম শুরু হচ্ছে। চলবে ২৭ আগস্ট পর্যন্ত। জরিপ চলাকালে গাড়িসহ চালকদের হাজির হতে হবে। জরিপে কাগজপত্র যাচাই করে দেখা হবে। এছাড়া নগরীর বিভিন্ন রুটে কী পরিমাণ ফিটনেসবিহীন গাড়ি চলাচল করছে তারও একটি ডাটা তৈরি করা হবে।
সিএমপির ট্রাফিক বিভাগ জানিয়েছে, আগামী ১০ আগস্ট থেকে ২৭ আগস্ট পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল দশটা থেকে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত নগরীর বিভিন্ন রুটে চলাচলকারী বাস-মিনিবাসের জরিপ কার্যক্রম পরিচালনা করবে সংশ্লিষ্ট কমিটি। গত ২৩ মে মেট্রো আরটিসির সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। জরিপ কার্যক্রম চলাকালীন নির্ধারিত সময়সূচি অনুযায়ী রুটভিত্তিক চলাচলকারী বাস-মিনিবাসগুলো নগরীর জমিয়াতুল ফালাহ মসজিদ কমপ্লেক্স মাঠে হাজির করতে মালিক-শ্রমিকদের অনুরোধ করা হয়েছে।
নির্ধারিত সময়সূচি অনুযায়ী, ১, ২ ও ৮ নম্বর রুটে চলাচলরত বাস-মিনিবাস আগামী ১০ এবং ১১ আগস্ট, ৩ নম্বর রুটের গাড়ি ১৩ আগস্ট, ৪ নম্বর রুটের গাড়ি ১৪ আগস্ট, ৫ ও ৬ নম্বর রুটের গাড়ি ১৬ এবং ১৭ আগস্ট, ৭ নম্বর রুটের গাড়ি ২০ এবং ২১ আগস্ট, ১০ নম্বর রুটের গাড়ি ২২ এবং ২৩ আগস্ট, ১১ নম্বর রুটের গাড়ি ২৪ আগস্ট, ১৪ থেকে ১৮ নম্বর রুটের গাড়ি ২৫ আগস্ট এবং ইপিজেড রুটের গাড়ি ২৭ আগস্ট জরিপে হাজির করতে হবে।