খাজা আব্দুর রহমান চৌহরভী ও শাহ্ আমান খান ওরছ

12

 

গত ১৮ জুলাই বাদে যোহর বায়েজিদ থানাধীন হাজী পাড়া আশেকানে আউলিয়া দরবার শরীফে মজমুয়ায়ে ছালাওয়াতে রাসুলের প্রণেতা কুতুবুল আলম হযরত খাজা আবদুর রহমান চৌহরভী (রহ.) ও কুতুবুল আকতাব হযরত শাহ্ আমানত খান (রহ:) সহ পবিত্র এ জিলহজ্ব মাসে ও ওফাত প্রাপ্ত অলিয়ে কামেলিনদের স্মরণে মাসিক “ওরছে কুল” দরবারের সাজ্জাদানশীন পীরে তরিক্বত অ
ধ্যক্ষ আল্লামা খায়রুল বশর হক্কানী (ম:জি:আ:) সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য রাখেন আশেকানে আউলিয়া ডিগ্রী মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা মুহাম্মদ রিয়াদুল হক আলকাদেরী, মুহাম্মদ আরিফুর রহমান, আলহাজ্ব মাওলানা খায়রুল আমিন চিশতি, মাওলানা ছালে সুফিয়ান, শেখ মুহাম্মদ আরিফুর রহমান, মাওলানা শহীদুল্লাহ, মাওলানা আব্দুল আওয়াল ফোরকানী, মনিরুর রহমান খতিব, হাফেজ আহমদুর রহমান, মাওলানা তাছলিম উদ্দীন, আলহাজ্ব মাওলানা আব্দুর রহমান প্রমুখ। সভাপতির বক্তব্যে আল্লামা হক্কানী (ম.জি.আ:) বলেন-কুতুবুল আলম হযরত খাজা আব্দুর রহমান চৌহরভী (রহ:) একজন মাদারজাত অলিয়ে কামেল ছিলেন। এ মহান ব্যক্তির রচিত অসাধারণ আধ্যাত্মিক গ্রন্থ মজমুয়ায়ে ছালাওয়াতে রাসুল নবী প্রেমিকদেরকে রাসুলে পাক (দ:) এর সাথে সেতু বন্ধনে অনন্য ভূমিকা রেখে যাচ্ছেন তা তরিকতের অনুসারীদের সর্বাবস্থায় উজ্জ্বীবিত রাখে। আর কুতুবুল আকতাব হযরত শাহ্ আমান খান (রহ.) চট্টগ্রাম শহরের বিস্তৃতি ও তিলোত্তমা নগরীতে পরিণত করতে সর্বাবস্থায় আল্লাহ’র ধ্যানে মগ্ন থাকেন এবং সর্বস্তরের অলি প্রেমিকদের রুহানী ফয়েজ দান করেন, আধ্যাত্মিকতার সুউচ্চতায় অধিষ্ঠিত করতে সহায়তা করে থাকেন সবসময়। এসব মহান অলিয়ে কামেলীনদের তজকরা এদরবারে আজ প্রায় ৪৭ বছরেরও অধিক কালপর্যন্ত ধারাবাহিকভাবে করে যেতে পেরে আমি নিজেকে ধন্যমনে করছি এবং এ মহান অলিয়ে কামেলীনদের উচিলায় বর্তমান মহাদূর্যোগ করোনা ভাইরাসের ভয়াবহতা থেকে মুসলমানরা যেন রক্ষা পায় তার জন্য মহান আল্লাহ রাব্বুল ইজ্জতের কাছে ফরিয়াদ করছি আমিন। পরিশেষে মিলাদ কিয়াম ও আখেরী মুনাজাতের মাধ্যমে ওরছে কুলের সমাপ্তি হয়।