কিছু বলার নেই

7

পূর্বদেশ ডেস্ক

ঢাকা সফররত যুক্তরাষ্ট্রের উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধিদলের সঙ্গে বৈঠক শেষে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, তাদের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। এতটুকু বলা যাবে। এর বেশি কিছু বলার নেই। গতকাল শনিবার ঢাকার গুলশানে ওয়েস্টিন হোটেলে এক ঘণ্টা এ বৈঠক হয়।
বিকাল ৩টায় শুরু এ বৈঠকে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের নেতৃত্বে তিন সদস্য অংশ নেন। সফরকারী তিন সদস্যের প্রতিনিধি দলে ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক উপ-সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী আফরিন আখতার।
প্রায় ঘণ্টাব্যাপী এ বৈঠকের পর আমীর খসরু সাংবাদিকদের বলেন, উনারা আমাদেরকে ইনভাইট করেছেন। আমরা এসেছি, কথাবার্তা বলেছি। এতটুকু বলতে পারব। এর বেশি কিছু বলার নেই।
কী কথা হয়েছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা কিছু বলতে চাই না। কথা হয়েছে, উনারা দাওয়াত করেছেন। আমরা এসেছি-দ্যাটস অল। আপনারা কী বলেছেন আবারও প্রশ্ন করা হলে বিএনপির বৈদেশিক সম্পর্ক বিষয়ক কমিটির আহŸায়ক আমীর খসরু বলেন, কিছু বলার নেই। খবর বিডিনিউজের।
৭ জানুয়ারির দ্বাদশ সংসদ নির্বাচন নিয়ে কথা হয়েছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, একটাই উত্তর হবে, কিছু বলার নেই।
আপনি ও বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল কারাগারে ছিলেন। এ বিষয়ে কিছু কথা হয়েছে কি না জানতে চাইলে আমীর খসরু বলেন, আপনারা যত প্রশ্ন করবেন। আমার উত্তর হচ্ছে, কিছু বলার নেই।
যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধিদল বা দূতাবাসের পক্ষ থেকেও কেউ সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেননি।
সাড়ে তিন মাস পর কারাগার থেকে ছাড়া পাওয়ার পর মির্জা ফখরুল ও আমীর খসরুর বিদেশি কোনো প্রতিনিধিদলের সঙ্গে এটি প্রথম বৈঠক। বিএনপির প্রতিনিধি দলের অপরজন হলেন সাংগঠনিক সম্পাদক শ্যামা ওবায়েদ।
সফরকারী প্রতিনিধি দলে ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক উপ-সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী আফরিন আখতার। বাকি দুই সদস্য হলেন মার্কিন প্রেসিডেন্টের বিশেষ সহকারী, যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা কাউন্সিলের (এনএসসি) দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক সিনিয়র ডিরেক্টর আইলিন লাউবাকার, ইউএসএইড সহকারী প্রশাসক ও এশিয়া ব্যুরো মাইকেল শিফার। বৈঠকে ঢাকায় যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত পিটার হাসও ছিলেন।
‘সম্পর্ক শক্তিশালী’ করার লক্ষ্যে যুক্তরাষ্ট্রের উচ্চ পর্যায়ের তিন সদস্যের এ প্রতিনিধি দল ঢাকায় পৌঁছায় এদিন সকালে।
আগামীকাল সোমবার পর্যন্ত বাংলাদেশে অবস্থানকালে তারা দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনের পর গঠিত সরকারের সঙ্গে বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা করবে। প্রথম দিন নির্বাচন বজর্নকারী বিএনপির সঙ্গে বৈঠক করে তারা।
আর আওয়ামী লীগের টানা চতুর্থ মেয়াদে সরকার গঠনের পর প্রথম উচ্চ পর্যায়ের সফরে ঢাকায় এসেছে যুক্তরাষ্ট্রের একটি প্রতিনিধি দল।
এর আগে গত বছরের ১৬ অক্টোবর ঢাকায় এসেছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক উপ-সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী আফরিন আখতার। সেসময় বাংলাদেশের নির্বাচন প্রসঙ্গে কথা বলার পাশাপাশি কক্সবাজারে রোহিঙ্গা ক্যাম্পও পরিদর্শন করেন।
এ সফর নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাসের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, প্রতিনিধি দল বাংলাদেশের সঙ্গে ক‚টনৈতিক বন্ধন শক্তিশালী করার উপায়, চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা এবং ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলে উভয়ের স্বার্থন্নোয়নে পারস্পরিক দৃষ্টিভঙ্গি তুলে ধরবে।
সফরকালে সরকারের উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তা ছাড়াও তরুণ অধিকারকর্মী, সুশীল সমাজের নেতা, শ্রম সংগঠন এবং সেন্সরবিহীন সংবাদমাধ্যমের বিকাশে যুক্ত ব্যক্তিদের সঙ্গেও যক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি দল বৈঠক করবে।