কাঞ্চননগরে জমি নিয়ে বিরোধ বসতবাড়িতে আগুন দেয়ার অভিযোগ

47

ফটিকছড়ির উত্তর কাঞ্চননগর টিলাপাড়া মইদ্দার ডেবা নামক এলাকায় জমি-জমার বিরোধকে কেন্দ্র করে পূর্ব শত্রুতার জেরে এক বসতবাড়িতে আগুন দিয়ে বসতঘর জ্বালিয়ে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। এতে ৬ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি সাধন হয় বলে অভিযোগ করেন বসতঘর পুড়ে যাওয়া শফিউল আলমের ছেলে মো. ইব্রাহীম। এ ব্যাপারে ক্ষতিগ্রস্ত শফির ছেলে মো. ইব্রাহীম বাদী হয়ে মধ্য কাঞ্চননগর হাজীর বাড়ির দেলোয়ার হোসেনের ছেলে শাহাবুল্লাহ, শাহজাহান, ইসহাক, ইসমাইল, সাইফুল, জমার বাড়ির আবুল ফজল, তার ছেলে মো. মানিক, সাজ্জাদ, খায়রুল আমিন, নাছির, জেবল হোসেন ও খুইল্লা মিয়াকে বিবাদী করে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। ইব্রাহীম অভিযোগ করে বলেন, বিবাদীরা দীর্ঘদিন যাবৎ তাদের জায়গা-জমি জবর দখল করার পায়তারা করে যাচ্ছে।
জায়গা-জমির বিরোধকে কেন্দ্র করে বিগত সময়ে বিবাদীরা তাকে এবং তার মাকে মারধর করা ছাড়াও তাদের ১০টি ছাগল হত্যা করে, ৩০টি মুরগী ও ২০টি হাঁস নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে আদালতে মামলা দায়ের করলে বিবাদীরা জামিনে এসে পুনরায় হত্যার উদ্যোশে তাদের উপর হামলা চালিয়ে তার মা, বাবাসহ তাকে গুরুতর আহত করে। চিকিৎসা চলাকালীন সময়ে বিবাদীরা তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করলে ঐ মামলায় আদালতে জামিন চাইতে গেলে সেই সুযোগে ১৫ জানুয়ারী রাতে বিবাদীরা তাদের বসতঘর আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেয়। আগুনে ১২শ আড়ি ধান, নগদ ৬০ হাজার টাকা, ২টি মোবাইল ও বসতঘরসহ ৬লক্ষাধিক টাকার মালামাল সম্পুর্ন পুড়ে ছাই হয়ে যায়।
এছাড়াও বিবাদীরা তাদের প্রতিনিয়ত প্রাণে মেরে ফেলার হুমকী দিয়ে যাচ্ছে বলেও ইব্রাহীম অভিযোগ করেন। এখন তারা জীবনের নিরাপত্ত্বা চেয়ে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে অভিযুক্ত ১নং বিবাদী শাহাবুল্লাহ বলেন, বিবাদীরা আমার আত্বীয় হওয়ায় তাদের পক্ষে কথা বলাই আমাকেও আমার শশুরকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করছে। আগুন দেয়ার ব্যাপারে আমি কিছুই জানিনা। অভিযুক্ত তার শশুর খুইল্লা মিয়া বলেন, এটা মিথ্যা অভিযোগ। তারা নিজেরাই তাদের ঘরে আগুন দিয়ে আমাদের দোষারুপ করতেছে। আগুন লাগার ব্যাপারে আমাদের কোন হাত নেই। এ ব্যাপারে ফটিকছড়ি থানা অফিসার ইনচার্জ বাবুল আকতার বলেন, একটি অভিযোগ পেয়েছি। যাচাই-বাচাই করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।