কর্ণফুলী গ্যাসের জিএমসহ তিন জন গ্রেপ্তার

55

সরকারি আদেশ অমান্য করে ভুয়া কাগজপত্রের মাধ্যমে অবৈধ গ্যাস সংযোগ দেয়ার অভিযোগে চট্টগ্রামের কর্ণফুলী গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির (কেজিডিসিএল) ইঞ্জিনিয়ারিং সার্ভিসেস ডিভিশনের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) প্রকৌশলী মো. সারওয়ার হোসেন, সাবেক কর্মকর্তা মুজিবুর রহমান ও সার্ভেয়ার দিদারুল আলমকে গ্রেপ্তার করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। এছাড়া ৫ আসামির মধ্যে দুইজন এখনো অধরা রয়েছেন। এদের মধ্যে সাবেক মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি পুত্র মুজিবুর রহমানও রয়েছেন।
গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে প্রকৌশলী মো. সারওয়ার হোসেন ও মুজিবুর রহমানকে গ্রেপ্তার করা হয় এবং বিকেল ৪টার দিকে সীতাকুন্ড উপজেলার ফৌজদারহাট এলাকা থেকে সার্ভেয়ার দিদারুল আলমকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
বিষয়টি দৈনিক পূর্বদেশকে নিশ্চিত করেছেন দুদক জেলা সমন্বিত কার্যালয় চট্টগ্রাম-২ এর উপ-সহকারী পরিচালক মো. শরীফ উদ্দিন।
দুদক সূত্রে জানা যায়, সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সাবেক প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি’র পুত্র মুজিবুর রহমানকে ১২টি দ্বৈত চুলা স্থানান্তর ও ১০টি নতুন দ্বৈত চুলার সংযোগ প্রদান করে কেজিডিসিএলের কর্মকর্তারা। এ ঘটনায় মন্ত্রীপুত্র মুজিবুর রহমানসহ কেজিডিসিএলের চার কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়। মামলায় আসামি হওয়া চার কর্মকর্তা হলেন- কোম্পানিটির মহাব্যবস্থাপক (ইঞ্জিনিয়ারিং সার্ভিসেস) মো. সারওয়ার হোসেন, সাবেক মহাব্যবস্থাপক (বিপণন) মোহাম্মদ আলী চৌধুরী, ট্রান্সমিশন ডিপার্টমেন্টের ব্যবস্থাপক মো. মজিবুর রহমান ও সার্ভেয়ার মো. দিদারুল আলম। এদের মধ্যে সারওয়ার হোসেন ও মজিবুর রহমানকে গতকাল বৃহস্পতিবার গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
দুদক জেলা সমন্বিত কার্যালয় চট্টগ্রাম-২ এর উপসহকারী পরিচালক মো. শরীফ উদ্দিন দৈনিক পূর্বদেশকে বলেন, ‘অবৈধ উপায়ে মুজিবুর রহমান নামে এক ব্যক্তিকে মোট ২২টি গ্যাসের সংযোগ প্রদানের জন্য ওই গ্রাহকসহ কেজিডিসিএলের চার কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এদের মধ্যে কেজিডিসিএলের তিন কর্মকর্তাকে আজ (বৃহস্পতিবার) গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রাহক মুজিবুর রহমান ও কেজিডিসিএল কর্মকর্তা আলী চৌধুরীকে গ্রেপ্তারে অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে।
তিনি আরও বলেন, গ্রেপ্তার কেজিডিসিএল’র দুই কর্মকর্তাকে আজ (বৃহস্পতিবার) দুপুরে সংশ্লিষ্ট মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে রিমান্ডের আবেদন করা হবে।
আদালত সূত্রে জানা গেছে, দুদকের মামলায় গ্রেপ্তার কেজিডিসিএল’র দুই কর্মকর্তাকে চট্টগ্রাম মহানগর দায়রা জজ শেখ আশফাকুর রহমানের আদালতে হাজির করা হয়। পরে আদালত তাদেরকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
এদিকে, কেজিডিসিএল’র মহাব্যবস্থাপক (জিএম) মো. সারওয়ার হোসেন ও ব্যবস্থাপক মো. মজিবুর রহমানের মুক্তির দাবিতে আন্দোলনে নেমেছেন প্রতিষ্ঠানটির কর্মচারীরা। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল চারটার দিকে নগরের ষোলশহর এলাকায় কেজিডিসিএল কার্যালয়ের ফটকে তারা আন্দোলন করেন।
আন্দোলনে নেতৃত্ব দেওয়া কেজিডিসিএল সিবিএ’র সাধারণ সম্পাদক আসলাম উদ্দিন বলেন, তাদেরকে একটি সাজানো মামলায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অনতিবিলম্বে তাদের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করছি।
প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের ২৮ ফেব্রæয়ারি থেকে সরকারি নির্দেশনায় আবাসিক খাতে নতুন করে গ্যাস সংযোগ দেওয়া বন্ধ রয়েছে।