এলাকা হাতির ভয়ে নির্ঘুম রাত

5

কাপ্তাই প্রতিনিধি

কাপ্তাইয়ের কর্ণফুলী পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের অভ্যন্তর ও এর আশপাশের এলাকায় বন্যহাতির ভয় বিরাজ করছে। এখানে বসবাসকারীরা আতঙ্কে রাত কাটাচ্ছেন। প্রতিদিন সন্ধ্যা নামার সাথে সাথেই সবার মধ্যে একই ভয়, এই বুঝি হাতির পাল এলো।
সর্বশেষ গত সোমবার রাতভর বন্যহাতির দল বিদ্যুৎ ভবন ও বক্স হাউজ এলাকায় অবস্থান নেয় বলে জানান কাপ্তাই বিদ্যুৎ কেন্দ্রের সহকারী পরিচালক (নিরাপত্তা) সাখাওয়াত কবির। তিনি বলেন, এ সময় আশেপাশের বাসিন্দারা ভয়ে নিরাপদ আশ্রয়ে অবস্থান নেন। সোমবার সন্ধ্যা ৭টায় বিদ্যুৎ ভবনের পাশে একদল হাতি অবস্থান নেয়। পরে আমরা বাঁশি বাজিয়ে ও চিৎকার করে হাতির পালকে তাড়িয়েছি।
এর আগে গত বৃহস্পতিবার রাত ৩ টায় একদল হাতি বক্স হাউজ, আনসার ব্যারাক ও অফিসার কোয়ার্টারে হামলা করে সব লন্ডভন্ড করে দেয় বলে জানান কাপ্তাই ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের সিনিয়র অফিসার শাহাদাৎ হোসেন।
কাপ্তাই রাইট ব্যাংক এলাকার বাসিন্দা ফারহানা আহমেদ পপি ও মিজানুর রহমান রাসেল জানান, গত সোমবার ইফতারের পর নতুন বাজার যাওয়ার উদ্দেশ্যে বের হই। এ সময় বিদ্যুৎ ভবনের নিচে হাতির মুখে পড়ি। পরে আমরা হই-হুল্লোড় করে হাতি তাড়াই। এমন ঘটনায় আমাদের স্বাভাবিক জীবন যাপনে সমস্যা হচ্ছে। আমরা নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছি।
কাপ্তাই প্রজেক্ট এলাকার বাসিন্দা সুবল দাশ জানান, ২ দিন আগে চৌধুরী ছড়া নিচের বাজারে আমি হাতির মুখে পড়ি। একটুর জন্য প্রাণে বেঁচে যাই।
কাপ্তাই পিডিবির স্টাফ বকুল জানান, একদিন আগে বিদ্যুৎ ভবনে ডিউটিরত অবস্থায় রাতে হাতির সামনে থেকে দৌঁড়ে গিয়ে আত্মরক্ষা করি।
বন বিভাগের কাপ্তাই রেঞ্জ অফিসার আবু সুফিয়ান বলেন, বনের মধ্যে খাদ্য সংকটের কারণে হাতির দল লোকালয়ে এসে তান্ডব করছে। আমরা অপরিকল্পিতভাবে বন কেটে জুম চাষ করছি, আবার বনের গাছ কেটে উজাড় করছি। ফলে হাতির আবাসস্থল ধ্বংস হচ্ছে। সবার উচিত হাতির আবাসস্থল যাতে ধ্বংস না হয়, সেদিকে খেয়াল রাখা।