উদ্বোধনের এক বছর পরও খুলেনি দরজা

4

মো. শাফায়েত হোসেন, বান্দরবান

প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের পর কেটে যাচ্ছে ১২ মাস, তবুও চালু হয়নি বান্দরবান সদর উপজেলার মডেল মসজিদ। দৃষ্টিনন্দন মসজিদটির সৌন্দর্য্য দেখতে প্রতিদিন দূর-দূরান্ত থেকে ছুটে আসছেন দর্শনার্থীরা।
বান্দরবান জেলা শহরের বালাঘাটায় সদর উপজেলার এ মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রটি নির্মিত হয়েছে। ২০১৯ সালে ১২ কোটি ৩৪ লক্ষ টাকা ব্যয়ে প্রায় এক একর জায়গার উপর এর নির্মাণ কাজ শুরু করে গণপূর্ত বিভাগ। ২০২৩ সালে নির্মাণ কাজ শেষ করে ১৭ এপ্রিল ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে মসজিদটির উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
এরপর উদ্বোধনের পরও মসজিদটি চালু না হওয়ায় প্রায় ১২ মাস নামাজ আদায় থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন স্থানীয়রাসহ দূর-দূরান্ত থেকে বেড়াতে আসা মুসল্লিরা।
এদিকে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও বাসিন্দাদের মতে, বান্দরবানের অনেক স্বপ্নের এই মডেল মসজিদটি অনেক সুন্দর। প্রতিদিন মসজিদের সৌন্দর্য্য দেখতে আশপাশের এলাকা থেকে অনেক দর্শনার্থী ছুটে আসেন। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করার পরও মসজিদটি নামাজ আদায়ের জন্য খুলে দেওয়া হচ্ছে না। যার কারণে স্থানীয়রাসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা দর্শণার্থীরা নামাজ আদায় থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। দর্শনার্থীরা জানান, মডেল মসজিদ নির্মাণ হয়েছে শুনে দেখতে এসেছি। মসজিদটি দেখতে অনেক সুন্দর।কিন্তু নামাজ আদায় করতে পারিনি। যদি নামাজ আদায়ের জন্য চালু করে দেওয়া হয়, তাহলে আমাদের মত যারা মসজিদ দেখতে আসবেন, তারা মসজিদের সৌন্দর্য্য উপভোগের পাশাপাশি নামাজ আদায় করতে পারবেন। তাই দ্রুত মসজিদটি নামাজ আদায়ের জন্য খুলে দেওয়ার দাবি করছি।
স্থানীয়দের দাবি, ইমাম নিয়োগ প্রক্রিয়ার অজুহাতে মসজিদটি খুলে দেওয়া হচ্ছে না। ফলে নামাজ আদায় থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন মুসল্লিরা।
এদিকে মডেল মসজিদ কমিটির সভাপতি ও বান্দরবান সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উম্মে হাবীবা মীরা বলেন, মসজিদের ইমাম, খাদেম ও মোয়াজ্জিন নিয়োগ প্রক্রিয়ার সরকারি নীতিমালা রয়েছে। নীতিমালা অনুযায়ী যোগ্য ইমাম নিয়োগ করে ঈদের পরে মসজিদটি নামাজের জন্য খুলে দেওয়া হবে।
বান্দরবানের জেলা প্রশাসক (ডিসি) শাহ্ মোজাহিদ উদ্দিন বলেন, দুইবার সার্কুলার দেওয়া হয়েছে, তবে ইমাম না পাওয়ার কারণে নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা যায়নি। তবে মোয়াজ্জিন ও খাদেম নিয়োগ চূড়ান্ত হয়েছে। ইমাম নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলেই দ্রুত সময়ের মধ্যে মসজিদটি খুলে দেওয়া হবে।