ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থীর সংবাদ সম্মেলন প্রতিপক্ষ প্রার্থীর হুমকি ও টাকা ছড়ানোর অভিযোগ

15

 

আসন্ন ইউপি নির্বাচনে প্রচার প্রচারণায় ব্যস্ত প্রার্থীরা। তবে সব জায়গায় কম-বেশি এক প্রার্থী অন্যপ্রার্থীকে নানাভাবে হুমকি, ভয়ভীতি প্রদর্শন করে আসছেন। শুক্রবার চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে হাটহাজারীর শিকারপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. আবদুল খালেক (আনারস প্রতীক) তার প্রতিপক্ষ আরেক চেয়ারম্যান প্রার্থী (নৌকা প্রতীক) আবু বক্কর ছিদ্দিকীর বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেন। সেখানে হুমকি, ভয়ভীতির পাশাপাশি কালো টাকার ছড়াছড়ির কথাও উল্লেখ করেন তিনি।
লিখিত বক্তব্যে আবদুল খালেক বলেন, আমার প্রতিপক্ষ প্রার্থী আবু বক্কর ছিদ্দিকী স্বাধীন স্বচ্ছ নির্বাচনে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির অপপ্রয়াস চালাচ্ছেন। যা আমি দেশবাসী ও ইউনিয়নবাসীকে জানিয়ে দিতে চাই। তিনি আমার নির্বাচনী কর্মীদের ভয়ভীতি ও হুমকি এবং কালো টাকার ছড়াচ্ছেন। এমনকি আমার নির্বাচন পরিচালনা কমিটির উপদেষ্টাদের নামে অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন।
তিনি আরও বলেন, বর্তমান সরকার অবাধ সুষ্ঠু নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে বদ্ধপরিকর। যার প্রেক্ষিতে সরকার প্রধান দেশরতœ শেখ হাসিনা ইতিমধ্যে প্রশাসনকে এ ব্যাপারে সুস্পষ্ট নির্দেশ প্রদান করেন যাতে সুষ্ঠু নির্বাচনের মধ্য দিয়ে সরকারের ভাবমূর্তি অক্ষুন্ন থাকে। কিন্তু তিনি বিগত সময়ে ইউনিয়ন পরিষদকে কুক্ষিগত করে লক্ষ কোটি টাকা আত্মসাৎ করে টাকার পাহাড় গড়েছেন। যার একটা অংশ আসন্ন আগামী ২৮ নভেম্বর নির্বাচনকে কেন্দ্র করে খরচ করে যেকোনও মূল্যে ভোট ডাকাতির প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন। আমার প্রতিপক্ষ প্রার্থী আবু বক্কর ছিদ্দিকী নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার সমস্ত রকমের অপপ্রয়াস হাতে নিয়েছেন। যার ফলে রাষ্ট্রের মূল লক্ষ্য ব্যাহত হওয়ার সম্ভবনা শতভাগ। আমি নৌকা বা আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে নই, কিন্তু আমি বা আমরা যাকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে তার বিরুদ্ধে বলছি। আমি সরকারের ভাবমূর্তি রক্ষার মধ্য দিয়ে সুষ্ঠু নির্বাচন ও প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে চাই। পাশাপাশি আমি শেষ পর্যন্ত নির্বাচনে মাঠে থাকব ইনশাআল্লাহ।
এসময় সাবেক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি লোকমান হোসেন জুনু, মো. রফিক মিয়া, আ.লীগ নেতা মো. আলমগীর চৌধুরী, শেখ হারুন, মো. ইকবাল মিয়া প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।