আর বাড়বে না ব্রেক্সিটের সময়সীমা : ইইউ প্রধান

18

ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে যুক্তরাজ্যের বের হয়ে যাওয়ার (ব্রেক্সিট) মেয়াদ আর বাড়ানো নাও হতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন ইইউ কাউন্সিল প্রধান ডোনাল্ড টাস্ক। তিনি বলেন, ‘ইইউয়ের ২৭টি দেশ সময়সীমা বাড়ানোর আবেদন আনুষ্ঠানিকভাবে মেনে নিয়েছে। তবে এবারই বোধহয় শেষ।’ দীর্ঘ টানাপড়েন আর অনিশ্চয়তার পর স¤প্রতি ব্রেক্সিট চুক্তির বিষয়ে ইইউ-জনসন সমঝোতা হলেও ব্রিটিশ পার্লামেন্টে তা অনুমোদন পায়নি। পার্লামেন্ট প্রস্তাবিত খসড়া নিয়ে আলোচনার পক্ষে অবস্থান নিলেও জনসনের পক্ষ থেকে আলোচনা তিন দিনের মধ্যে শেষ করার সময়সীমা বেঁধে দেওয়ার যে প্রস্তাব তোলা হয়,তা ৩২২-২০৮ ভোটে নাকচ হয়ে যায়। ফলে জনসনকে তাকিয়ে থাকতে হয় ইইউর পরবর্তী পদক্ষেপের দিকে। সোমবার ইইউ-এর পক্ষ থেকে ব্রেক্সিট কার্যকরের পূর্বনির্ধারিত সূচি ৩১ অক্টোবর থেকে ৩ মাস বাড়িয়ে ২০২০ সালের ৩১ জানুয়ারি নির্ধারণ করা হয়।
ডোনাল্ড টাস্ক সবসময়ই বলে এসেছেন তিনি চান যুক্তরাজ্য যেন ইইয়ে থেকে যায়। ইউরোপীয় ইউনিয়নের বিদায়ী চেয়ারম্যান ডোনাল্ড টাস্ক বলেন, আমি আপনাদের সবাইকে বিদায় জানাতে চাই। আমার যাত্রা এখানেই শেষ হচ্ছে। আমি সবসময়ই আপনাদের জন্য দোয়া করবো। ব্রেক্সিট ইস্যুতে সমঝোতায় পৌঁছাতে ব্যর্থ হয়ে চলতি বছরের মে মাসে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে পদত্যাগের ঘোষণা দেন থেরেসা মে। তিনি সরে দাঁড়ানোর পর ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন কট্টর ব্রেক্সিটপন্থী বরিস জনসন। আগামী ৩১ অক্টোবর নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ব্রেক্সিট বাস্তবায়নের ঘোষণা দেন তিনি। প্রয়োজনে চুক্তিহীন ব্রেক্সিট বাস্তবায়নেরও ইঙ্গিত দেন জনসন। পরে ইউরোপীয় ইউনিয়নের কাছে ব্রেক্সিট কার্যকরের সময় বাড়াতে আবেদন করে যুক্তরাজ্য।