আবদুল লতিফ উকিল ছিলেন বঞ্চিত মানুষের নেতা

3

 

উপমহাদেশের অন্যতম স্বাধীনতা সংগ্রামী নির্ভীক আইনজীবী, জননেতা, চট্টগ্রাম আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, চট্টগ্রাম আইনজীবী সমিতির প্রথম মুসলিম সভাপতি আবদুল লতিফ উকিলের ৫৭ তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশের মুক্তিসংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধ গবেষণা কেন্দ্র-ট্রাস্ট এর উদ্যোগে সংগঠনের চট্টেশ্বরী রোডস্থ কার্যালয়ে এক স্মরণসভা অনুষ্ঠিত হয়। মুক্তিযুদ্ধ গবেষণা কেন্দ্রের চেয়ারম্যান ডা. মাহফুজুর রহমানের সভাপতিত্বে স্মরণসভায় প্রধান অতিথি ছিলেন মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম জাতীয় সংসদের নির্বাচিত সদস্য ডা. সামসুদ্দীন চৌধুরী। প্রাক্তন ছাত্রনেতা-সাংবাদিক, সরকারি কমার্স কলেজ ছাত্র সংসদের প্রাক্তন জিএস সোলায়মান খানের সঞ্চালনায় মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন- সীতাকুÐ তাহের-মনজুর কলেজের অধ্যক্ষ মুকতাদের আজাদ খান।
স্মরণসভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সহ-সভাপতি শহীদুল আলম, সাবেক জাতীয় সংসদ সদস্য ও চাকসু’র সাবেক সহ-সভাপতি মাজাহারুল হক শাহ্ চৌধুরী, মুক্তিযোদ্ধা গিয়াস মোহাম্মদ দিলদার, সাবেক এপিপি এডভোকেট সৈয়দ এহতেশামুল হক, নোটারি পাবলিক এডভোকেট জাফর আহমদ, সাজিদুল আনোয়ারা এবং মরহুমের পরিবারের পক্ষে কনিষ্ঠ পুত্র প্রবীণ সাংবাদিক ও মুক্তিযোদ্ধা মইনুদ্দীন কাদেরী শওকত। সভায় বিভিন্ন বক্তা বলেন, আবদুল লতিফ উকিল ছিলেন বৃটিশ সাম্রাজ্যবাদ বিরোধী স্বাধীনতা সংগ্রামে সমসাময়িক নেতাদের মধ্যে সাহসী ও আপোষহীন। তিনি ছিলেন বাংলা তথা ভারতবর্ষের মুক্তিকামী, নির্যাতিত, বঞ্চিত, শোষিত, মজলুম মানুষের নির্ভীক সংগ্রামী নেতা। আইনজীবী হিসেবে তিনি ছিলেন উদার ও জনদরদী। তাঁর উপার্জিত অর্থ তিনি অকাতরে গরীব-দুঃখী মানুষকে বিলিয়ে দিতেন। বিজ্ঞপ্তি