আন্দোলন সফল হয়েছে এখন শুধু বাস্তবায়ন বাকি

6

নিজস্ব প্রতিবেদক

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, গত ৭ জানুয়ারি যে গণভোট হয়েছে, সেখানে জনগণের জয় হয়েছে। গণতন্ত্রের জয় হয়েছে। বিএনপির জয় হয়েছে। যারা এ আন্দোলন করতে গিয়ে রাজপথে জীবন দিয়েছে, জেলে গিয়েছে, খুন ও গুম হয়েছে তাদের জয় হয়েছে। এ জয়কে আগামী দিনে বাস্তবায়ন করতে হলে আমাদের আন্দোলনের যে ধারা, সেটা চালিয়ে যেতে হবে। আমাদেরকে জেলে নিয়ে তারা মনে করেছিল বিএনপির নেতাকর্মীদের মনোবল ভেঙে দেবে। কিন্তু সেটা তারা করতে পারেনি। আমি তো মনে করি আরও জোরদার হয়েছে। যারা জেলে আছে তারা এক কাপড়ে আছে। এত কষ্টের মধ্যেও তাদের কারো মনোবল ভাঙেনি। তাদের মনোবল শক্ত আছে। এটাই বিজয়। আন্দোলন সফল হয়েছে, এখন শুধু এটার বাস্তবায়ন বাকি আছে।
গতকাল শনিবার বিকেলে নগরীর কাজির দেউড়ির নাসিমন ভবনে দলীয় কার্যালয়ের মাঠে মহানগর, উত্তর ও দক্ষিণ জেলা বিএনপির মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
আমির খসরু বলেন, আমরা বলেছিলাম তথাকথিত নির্বাচনে বাংলাদেশের মানুষ অংশগ্রণ করবে না। বাংলাদেশের ৯৫ শতাংশ মানুষ আমাদের ডাকে সাড়া দিয়ে ভোটকেন্দ্রে যায়নি। এটা কোন নির্বাচন নয়। নির্বাচনে তো দুই পক্ষ থাকবে। যেখানে দুই পক্ষ থাকবে না, সেটা নির্বাচন হতে পারে না।
তিনি বলেন, বাংলাদেশের রাজনীতিতে আগে যোগ হয়েছিল গায়েবি মামলা, নির্বাচনের পর যোগ হয়েছে ডামি প্রার্থী। ডামি প্রার্থী, ডামি ভোটার আর ডামি নির্বাচন এসব শব্দ যোগ হয়েছে। বাংলাদেশের মানুষ ভোট কেন্দ্রে যায়নি। যারা গেছে তাদের স্থানীয় আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসীরা ভয় দেখিয়েছে যাওয়ার জন্য। সরকারি কর্মকর্তাদের সুযোগ-সুবিধা ছিনিয়ে নেওয়ার ভয় দেখিয়েছে। সুবিধা বঞ্চিতদের কাছ থেকে সরকারি কার্ড পর্যন্ত কেড়ে নেওয়া হয়েছে। এতকিছুর পরও বাংলাদেশের মানুষ নির্বাচনে যায়নি। অর্থাৎ এ গণভোটে বাংলাদেশের মানুষ এত চাপের মধ্যে, এত গুম-খুনের মধ্যে সে রেজিমকে প্রত্যাখান করেছে। এটা হচ্ছে আন্দোলনের সুফল।
সবার অংশগ্রহণে এক বিশাল আন্দোলনের সূচনা হয়েছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, জনগণ বিএনপির পক্ষে রায় দিয়েছে। জনগণ এখনও তার ভোটাধিকার প্রয়োগ করার অপেক্ষায় আছে। জনগণ এখনও তার অধিকার ফিরে পাওয়ার অপেক্ষায় আছে। শুধুমাত্র কিছু লোক অবৈধ ও অনৈতিকভাবে একটি চক্র সৃষ্টি করে ক্ষমতায় বসে আছে। আওয়ামী লীগ ক্যু করে ক্ষমতা দখল করেছে। কিন্তু বাংলাদেশের মানুষের অবস্থার কোন পরিবর্তন হয়নি। আন্দোলন আন্দোলনের জায়গায় আছে, চলমান আছে। বাংলাদেশের ৯৫ শতাংশ মানুষ এ আন্দোলন করছে। এটা বাস্তবায়িত হবেই।
মহানগর বিএনপির আহব্বায়ক ডা. শাহাদাত হোসেনের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব আবুল হাশেম বক্করের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা গোলাম আকবর খোন্দকার, এস এম ফজলুল হক, কেন্দ্রীয় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবের রহমান শামীম, শ্রম সম্পাদক এ এম নাজিম উদ্দীন, উপজাতি বিষয়ক সম্পাদক ম্যা মা চিং, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক জালাল উদ্দীন মজুমদার, দক্ষিণ জেলা বিএনপির সি. যুগ্ম আহবায়ক এনামুল হক এনাম।
সভায় উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় বিএনপির সদস্য সাথী উদয় কুসুম বড়ুয়া, বান্দরবান জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জাবেদ রেজা, উত্তর জেলা বিএনপির সি. যুগ্ম আহব্বায়ক এম এ হালিম, মহানগর বিএনপির সি. যুগ্ম আহব্বায়ক আলহাজ এম এ আজিজ প্রমুখ।